top of page

মাটির নিচ থেকে উদ্ধার কঙ্কাল, ভাইয়ের দেহ দাবি দাদার

মাটির নিচ থেকে কঙ্কাল উদ্ধারের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়াল চাঁচল ১ ব্লকের ভগবানপুরের শেরবাউর গ্রামে। উদ্ধার হওয়া কঙ্কালটিকে ভাইয়ের দাবি করে পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছেন এক গ্রামবাসী। কঙ্কালটিকে ময়নাতদন্ত ও ডিএনএ টেস্টে পাঠিয়েছে পুলিশ।



গতকাল বিকেলে একটি জমিতে কাজ করার সময় চাষিরা কঙ্কালের খানিকটা অংশ দেখতে পান। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছোয় স্থানীয় মানুষজন ও চাঁচল থানার পুলিশ। এরপরেই ওই গ্রামের এক ব্যক্তি সুলতান আলির নিখোঁজ থাকার বিষয়টি সামনে আসে। পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, গত ১৫ জুন ১ লাখ ১০ হাজার টাকা নিয়ে সুলতান ঘরের নির্মাণ সামগ্রী কেনার জন্য বাইরে যান৷ সেদিন থেকেই তাঁর খোঁজ মিলছিল না৷ পরদিন তাঁর নামে চাঁচল থানায় মিসিং ডায়ারি করেন তাঁর দাদা আলাউদ্দিন সাহেব৷ গতকাল বিকেলে উদ্ধার হওয়া কঙ্কালের হাতে থাকা জামার অংশ দেখে সেটি তাঁর ভাইয়ের বলে শনাক্ত করেন আলাউদ্দিন সাহেব৷


আলাউদ্দিন সাহেব জানান, তিনি নিশ্চিত এটা তাঁর ভাইয়ের দেহ৷ তাঁর সন্দেহ, ভাইয়ের কাছ থেকে টাকাপয়সা কেড়ে তাকে খুন করে মাটিতে পুঁতে দেওয়া হয়েছে৷ তিনি পুলিশকে সমস্ত ঘটনা জানিয়েছেন।




চাঁচল থানার আইসি সুকুমার ঘোষ জানান, গতকাল বিকেলে একটি কঙ্কাল উদ্ধার হয়েছে৷ ওই এলাকার এক বাসিন্দা বেশ কিছুদিন ধরে নিখোঁজ ছিলেন৷ তাঁর নামে থানায় মিসিং ডায়ারিও হয়েছিল৷ নিখোঁজ ব্যক্তির দাদা দাবি করেছেন, এই কঙ্কালটি তাঁর ভাইয়ের৷ তাঁর দাবি মাথায় রেখে কঙ্কালটির ডিএনএ টেস্ট করানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷ তবে তিনি এখনও নতুন করে অভিযোগ দায়ের করেননি।

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page