top of page

স্নান করতে গিয়ে মহানন্দায় তলিয়ে গেল কিশোর

দুই ভাই একসাথে নদীতে স্নান করতে গিয়েছিল। নদীতে নেমে তলিয়ে যায় বড়ো ভাই। চিরুনি তল্লাশি চালিয়ে ২৪ ঘণ্টা পর নদী থেকে উদ্ধার হয় তলিয়ে যাওয়া কিশোরের দেহ। ঘটনাটি ঘটেছে চাঁচল ২ নম্বর ব্লকের চন্দ্রপাড়া গ্রামপঞ্চায়েতের বাহারাবাদ গ্রামে। এদিন মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিকেল কলেজে পাঠায়। এই ঘটনায় এলাকায় নেমে এসেছে শোকের ছায়া। খবর পেয়ে মৃত কিশোরের পরিবারের পাশে এসে দাঁড়ান ওই এলাকার প্রাক্তন বিধায়ক আব্দুর রহিম বকশি।


16 years old boy drowned in Mahananda

জানা গেছে, মৃত ওই কিশোরের নাম ওমর ফারুক, বয়স ১৬ বছর। চাঁচল ২ নম্বর ব্লকের চন্দ্রপাড়া গ্রামপঞ্চায়েতের বাহারাবাদ গ্রামে বাড়ি। ওমর গোয়ালপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্র। প্রতিবেশীদের থেকে জানা যায় যে, রবিবার দুপুরে ওমর ফারুক, তার ছোটো ভাইকে নিয়ে মহানন্দা নদীতে স্নান করতে যায়। স্নান করার সময় হঠাৎ জলে তলিয়ে যায় ওমর ফারুক। ছোটো ভাই বাড়িতে জানায় দাদাকে আর দেখা যাচ্ছে না। এরপর পরিবারের সদস্য ও গ্রামবাসীরা মিলে নদীতে তলিয়ে যাওয়া কিশোরের তল্লাশি শুরু করে। রবিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত নদীতে কোনো হদিস না পাওয়ার পর সোমবারে খবর দেওয়া হয় বিপর্যয় মোকাবিলা দলকে। সোমবার গোটা দিন বিপর্যয় মোকাবিলা দলের ডুবুরিরা নদীতে চিরুনি তল্লাশির পর সন্ধ্যা নাগাদ কিশোরের দেহ উদ্ধার হয়।




চাঁচল থানার পুলিশ কিশোরের দেহ থেকে উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিকেল কলেজে পাঠান। এদিকে এই খবর পাওয়ার পরই ওমর ফারুকের পরিবারের পাশে এসে দাঁড়ান মালতিপুর বিধানসভার প্রাক্তন বিধায়ক আব্দুর রহিম বকশি। পরিবারের প্রতি সমবেদনা আর পাশাপাশি কিছু আর্থিক অনুদান তুলে দেন তিনি।


আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

Opmerkingen


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page