top of page

গাজোলের প্রাক্তন বিধায়ক তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে

তৃণমূলের প্রাক্তন বিধায়ক যোগ দিলেন বিজেপিতে। গতকাল বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের হাত ধরে বিজেপিতে যোগ দেন তিনি। দীর্ঘদিন ধরে তৃণমূলে ব্রাত্য হয়েই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, এমনটাই জানিয়েছেন প্রাক্তন বিধায়ক। তবে প্রাক্তন বিধায়কের বিজেপিতে যোগ দেওয়াকে তেমন গুরুত্ব দিতে নারাজ তৃণমূল।


২০১১ সালে কংগ্রেস এবং তৃণমূলের জোট প্রার্থী হিসেবে গাজোল বিধানসভা কেন্দ্র থেকে জয়ী হন সুশীলচন্দ্র রায়। ২০১৪ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দেন সুশীলবাবু। ২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূল প্রার্থী হিসেবে লড়াই করেন তিনি। বাম-কংগ্রেস জোট প্রার্থী দীপালী বিশ্বাসের সেই নির্বাচনে জয়লাভ করেন। এরপর থেকেই কোণঠাসা হয়েছিলেন তিনি। সম্প্রতি তৃণমূলের জেলা কিংবা ব্লক কমিটিতে স্থান পাননি তিনি। গতকাল তিনি বিজেপিতে যোগ দেন।



সুশীলবাবু জানান, তৃণমূলের নেতারা দুর্নীতিগ্রস্ত হয়ে পড়েছে। তাঁদের কার্যকলাপ আমার পছন্দ হচ্ছে না। ২০১৬ সালে পরাজয়ের পর রাজ্য বা জেলা তৃণমূল আমাকে কোনও গুরুত্ব দেয়নি। সম্প্রতি জেলা এবং ব্লক কমিটি গঠন করা হয়েছে, কিন্তু কোনও কমিটিতেই আমার জায়গা হয়নি। এরপরেই আমি বিজেপি নেতৃত্বের সঙ্গে যোগাযোগ করি। আগামী বিধানসভায় গাজোলে আমার জনসমর্থন টের পাবে তৃণমূল।



প্রাক্তন বিধায়কের বিজেপিতে যোগদানের বিষয়টিতে গুরুত্ব দিতে নারাজ তৃণমূল। তৃণমূলের গাজোল ব্লক সভাপতি মানিক প্রসাদ জানান, কেউ বিজেপিতে যাওয়ায় দলের কোনও ক্ষতি হবে না। কংগ্রেস থেকে তিনি তৃণমূলে একাই এসেছিলেন, তৃণমূল থেকেও তিনি একাই বিজেপিতে গেলেন। ওনার সঙ্গে বিজেপির যোগাযোগ ছিল। বিষয়টি জানাজানি হতেই দল থেকে তাঁকে শোকজ করা হয়েছিল। তাঁকে সাসপেন্ড করার প্রক্রিয়াও শুরু হয়েছিল। বিষয়টি আঁচ করতে পেরে তড়িঘড়ি বিজেপিতে যোগদান করেছেন তিনি। সুশীলবাবু বিজেপিতে যাওয়ায় দলের কোনও ক্ষতি হবে না।


আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page