top of page

ভিটেছাড়া বৃদ্ধ দম্পতির ঠিকানা নেই, পাশে দাঁড়ালেন প্রাক্তন বিধায়ক

কালবৈশাখীতে ভেঙে পড়েছিল ঘর। সেই জায়গা এখন স্থানীয় কিছু মানুষের দখলে চলে গিয়েছে। বাধ্য হয়ে বৃদ্ধ দম্পতিতে মাথা গোঁজার জন্য আশ্রয় খুঁজতে হচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে ওই দম্পতির পাশে দাঁড়ালেন মালতিপুর বিধানসভা কেন্দ্রের প্রাক্তন বিধায়ক। চাঁচল ২ নম্বর ক্ষেমপুর গ্রামপঞ্চায়েতের কাণ্ডারণ কলেজপাড়ার ঘটনা। এদিন তিনি ওই এলাকার যান এবং পরিবারটির জন্য বেশ কিছু খাদ্যসামগ্রী ও মাথা গোঁজার জন্য ত্রিপলের ব্যবস্থা করেন।


The elderly couple has to look for shelter


ওই দম্পতির নাম ঝাপটু মাঝি ও চিকরি মাঝি। এই দম্পতি খাদ্যের অভাবে অসহায়। এখনও পাননি কোনও সরকারি সাহায্য। একাধিকবার এলাকার পঞ্চায়েত সদস্য ও প্রধানের কাছে আর্জি জানিয়েও কোনও ফল মেলেনি বলে দাবি ওই দম্পতির।


ওই দম্পতির দাবি, তাঁদের একটি কুঁড়েঘর ছিল। কিন্তু বছর পাঁচেক আগে ঝড়ে ঘরটি ভেঙে যায়। এরপর উপার্জনের আশায় ভিনরাজ্যে গিয়েছিলেন তাঁরা। সেখানে সাফাইয়ের কাজ করে দিনযাপন করতেন। কিছুদিন আগে গ্রামে ফিরে দেখেন এলাকার কিছু বাসিন্দা তাঁদের ভিটে দখল করে নিয়েছে। বাড়ির জন্য ব্লক ও পঞ্চায়েত প্রশাসনকে জানানো হয়েছিল। কিন্তু ঝড়ে জমির নথি নষ্ট হয়ে যাওয়ার প্রশাসনের থেকে সাহায্যও পাননি।



দম্পতির কথা জানতে পেরে পাশে দাঁড়ালেন মালতিপুর বিধানসভা কেন্দ্রের প্রাক্তন বিধায়ক আবদুর রহিম বকশি। তিনি পরিবারটির জন্য বেশ কিছু খাদ্যসামগ্রী ও মাথা গোঁজার জন্য ত্রিপলের ব্যবস্থা পাশাপাশি ব্লক প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলে পরিবারটির ঘরের ব্যবস্থা করা যায় কিনা তা দেখার কথাও জানান তিনি।

Bình luận


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page