top of page

পড়ে রয়েছে ধ্বংসাবশেষ, বেআইনিভাবে স্কুল গুড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ

ইংরেজবাজারের কালীতলায় একটি প্রাথমিক স্কুলকে কেন্দ্র করে বিতর্ক ছড়িয়েছে। অভিযোগ, শিক্ষা দফতরকে না জানিয়ে সেই স্কুল ভেঙে ফেলা হয়েছে। এনিয়ে ইংরেজবাজার থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের চেয়ারম্যান। আজ প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের চেয়ারম্যানকে নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন প্রাক্তন মন্ত্রী কৃষ্ণেন্দুনারায়ণ চৌধুরি।



মালদা শহরের কালীতলায় ছিল ছাত্রবন্ধু নামে একটি প্রাথমিক স্কুল। অভিযোগ, সম্প্রতি কেউ বা কারা শিক্ষা দফতরকে না জানিয়েই স্কুলের ঘর ভেঙে ফেলে৷ বিষয়টি নজরে আসতেই শিক্ষা দফতরকে জানান স্কুলের দুই শিক্ষিকা। প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের চেয়ারম্যান সুনীতি সাঁপুইয়ের নির্দেশে ঘটনার তদন্ত করে রিপোর্ট জমা দেন এসআই। এরপরেই ইংরেজবাজার থানায় অভিযোগ দায়ের করেন চেয়ারম্যান। আজ প্রাক্তনমন্ত্রী সেই অভিযোগের ভিত্তিতে প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের চেয়ারম্যানকে নিয়ে ঘটনাস্থলে যান। যদিও ঘটনাপ্রসঙ্গে কোনও মন্তব্য করতে চাননি প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের চেয়ারম্যান।


কৃষ্ণেন্দুবাবু জানান, প্রথমে স্কুলটি এলাকার অন্যান্য বাসিন্দাদের জমির ওপরে তৈরি করা হয়েছিল। পরবর্তীতে স্কুলের নামে পাশে একটি জায়গা কেনা হয়েছিল। বয়সের সঙ্গে সঙ্গে স্কুলটি ভেঙে পড়ে। বিষয়টি জানতে পেরে তিনি স্থানীয় একজনকে স্কুলের নিজস্ব জায়গায় ভবন তৈরি করে দিতে বলেন। শিক্ষিকাদের পাশাপাশি এসআই নিজেও এসে সমস্ত কিছু খতিয়ে দেখেছেন। তারপরেও অভিযোগ হয়েছে কেন? যেহেতু স্কুলটি তাঁর এলাকায়, তাই তাঁকে বদনাম করতেই এই অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করার কথাও বলেন প্রাক্তন মন্ত্রী।






আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page