top of page

জমি বিবাদে ক্যানসার রোগীকে মারধর, তৃণমূলের দিকে অভিযোগের তির

জমি বিবাদের জেরে গুরুতর আহত হলেন এক প্রৌঢ়। বর্তমানে তিনি কলকাতায় চিকিৎসাধীন। অভিযোগের তির তৃণমূলের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে হরিশ্চন্দ্রপুরের বারদুয়ারি এলাকায়।


আক্রান্ত বৃদ্ধের নাম জগদীশ ভগত৷ বারদুয়ারি এলাকায় তাঁর পেট্রোল পাম্প রয়েছে৷ অভিযোগ, কয়েকদিন আগে নিজেদের পাম্পের সামনের জমি টিন দিয়ে ঘিরে ফেলেন রাজীববাবু৷ সম্প্রতি সেই জমি নিজের বলে দাবি করেন প্রেমলতা মণ্ডল নামে এক মহিলা৷ প্রেমলতা মণ্ডলের হয়ে ওই জমি দখল করতে দলবল নিয়ে হাজির হয় বাবলু কর্মকার ও সাদ্দাম হোসেন। তারা টিনের বেড়া ভেঙে দেয়। বাধা দেওয়ায় রাজীবের বাবা ক্যানসার রোগী জগদীশ ভগতের উপর চড়াও হয়ে তাকে মারধর করা হয়। ঘটনাকে ঘিরে তুমুল উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়।



রাজীব ভগত বলেন, আমরা নিজেদের জমি টিন দিয়ে ঘিরেছিলাম। জমির সমস্ত নথিপত্র রয়েছে। কিন্তু তারপরেও তৃণমূলের জমি মাফিয়ারা চড়াও হয়ে ভাঙচুর করে। বাধা দিলে বাবাকেও ওরা ছাড়েনি। ওরা তৃণমূল কর্মী। পুলিশের পাশাপাশি আমরা বিচার চেয়ে জেলা তৃণমূল সভানেত্রী এমনকি মুখ্যমন্ত্রীকেও জানাব।


যদিও প্রেমলতা মণ্ডলের দাবি, ওখানে আমার জমি আছে। ওরা তা ঘিরে নিয়েছিল। পুলিশকে বিষয়টি জানিয়েছিলাম। আজ থানায় বসার কথা ছিল। কিন্তু ওরা আসেনি। তারপরেই আমি কয়েকজনকে নিয়ে নিজের জমিতে থাকা টিনের বেড়া সরিয়ে দিই।



হরিশ্চন্দ্রপুর-১ ব্লক তৃণমূল সভাপতি মানিক দাস বলেন, দল অন্যায়কে প্রশ্রয় দেয় না। ওই ঘটনায় আমাদের দলের কেউ জড়িত নয়। কেউ দলের নাম ভাঙিয়ে অন্যায় করলে আইন আইনের পথেই চলবে। বিজেপির হরিশ্চন্দ্রপুর মণ্ডল-১ সভাপতি রূপেশ আগরওয়ালা বলেন, চাল চুরি থেকে অবৈধভাবে জমি হাতানো সবেতেই সিদ্ধহস্ত তৃণমূল। আগেও এখানে তৃণমূলের জমি মাফিয়াদের হাতে ব্যবসায়ীরা আক্রান্ত হয়েছেন। দলের প্রশ্রয়ে ওদের এমন বাড়বাড়ন্ত।


আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page