top of page

মালদায় অপরাজিত ট্রিপল সেঞ্চুরি করোনার

শনিবার রাতে মালদা জেলায় কোভিড-১৯-এ রেকর্ড সংক্রমণ ধরা পড়ে। আক্রান্তের সংখ্যা একদিনে ৫১ জন। ফলে এই জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা এদিন ছড়িয়ে গেল তিনশোর গণ্ডি। এরসাথে এই প্রথম ওল্ড মালদা পুরসভা এলাকায় করোনা আক্রান্তের খোঁজ মিলেছে।


গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় সবচেয়ে বেশি ৩৮ জনের সংক্রমণ ধরা পড়েছে গাজোলে। এছাড়া চাঁচলের নতুন পাঁচজন আক্রান্ত এবং মানিকচক থেকে আক্রান্ত চারজন। বাকিরা ইংরেজবাজার, ওল্ড মালদা, হবিবপুর, রতুয়া এবং কালিয়াচক-২ নম্বর ব্লকের বাসিন্দা। ওল্ড মালদা পুরসভা এলাকার সামুন্ডাই কলোনিতে এই প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়ল।


গত ২৭ এপ্রিল জেলায় প্রথম করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত রোগীর হদিশ মেলে। এরপর ২৫ মে তারিখে সেই আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে একশো হয়। অর্থাৎ প্রথম একশো আক্রান্ত হতে সময় লাগে ২৮ দিন। এরপর জেলাবাসীর দুশ্চিন্তা বাড়িয়ে সেই সংখ্যা ২০০ হয় মাত্র ১২ দিনে। কিন্তু এবার তিনশোর পালা, সময় লাগল মাত্র এক সপ্তাহ। বিশেষজ্ঞ মহলের মতে, সংক্রমণের এই বৃদ্ধির হার যথেষ্ট উদ্বেগজনক।


২৫ মার্চ থেকে ৩০ মে পর্যন্ত পর্যায়ক্রমে দেশে লকডাউন চলার পর, গত ১ জুন থেকে আনলক প্রক্রিয়া শুরু হয় দেশ জুড়ে। মালদাতে আক্রান্তের সংখ্যা একশোর কোঠায় ঢোকে গত ২৫ মে, লকডাউন থাকাকালীন। এরপর মাত্র ১৯ দিনে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা এখন ৩১২ জন।



গতকাল রাত সাড়ে ১১টা পর্যন্ত মালদা মেডিকেল কলেজে ৪৮৭টি নমুনার পরীক্ষায় ৬৬ জনের রিপোর্ট ‘পজিটিভ’ পাওয়া যায়। এরমধ্যে ৫১ জন মালদা জেলার। সাথে উত্তর দিনাজপুরের আটজন এবং দক্ষিণ দিনাজপুরের সাতজন আক্রান্ত। গতকাল রাতে আরও ২৫টি নমুনার পরীক্ষা পর্ব শেষ হয় নি। নতুন করে করোনা আক্রান্তদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে পুরাতন মালদার কোভিড হাসপাতালে ও জোনাল আইসোলেশন সেন্টারে চিকিৎসার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে৷


মালদা মেডিকেল কলেজ সূত্রে জানা গিয়েছে, শনিবার ভাইরোলজি বিভাগে মালদা জেলার ১৫১টি লালারসের নমুনা আসে। সাথে উত্তর দিনাজপুর থেকে ছয়টি এবং দক্ষিণ দিনাজপুর থেকে ২৭টি নমুনাও জমা হয়। পরীক্ষাগারে ‘ব্যাকলগ’-এর সংখ্যা এদিন ৭৪টি। মেডিকেল কলেজের ভাইরোলজি বিভাগে এখন অবধি ২৫,৯৭৫টি লালারসের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে৷ (আপডেট)



Comments


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page