top of page

মালদা মেডিকেল চত্বরে শিকলবন্দি যুবক, চাঞ্চল্য

শিকল বন্দি করে এক যুবককে ঘোরানো হচ্ছে মালদা মেডিকেলে। এমন ছবিতে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে মালদা মেডিকেল চত্বরে। মানসিক ভারসাম্যহীন ওই ছেলেকে পাগলখানায় ভর্তি করতে না পেরে মেডিকেল চত্বরে ঘুরে বেড়াচ্ছেন বলে দাবি পরিবারের। সংবাদমাধ্যমের মাধ্যমে প্রশাসনের সহায়তা চাইছে ওই পরিবার।


মানসিক ভারসাম্যহীন ওই যুবকের নাম সেলিম (১৮)। বাড়িহরিশ্চন্দ্রপুরের ভালুকার বৈরনাহি গ্রামে। পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রায় আট বছর আগে হঠাৎ মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেন সেলিম। এরপর থেকেই মাঝেমধ্যেই বাড়ি থেকে পালিয়ে যাচ্ছেন সেলিম। এর আগে একবার ছয় মাস নিখোঁজ থাকার পর গোহাটি থেকে তাঁকে উদ্ধার করা হয়। মালদা-মুর্শিদাবাদ কোথাও সেলিমকে ভরতি করতে পারছেন না তাঁরা। আজ ফের ছেলেকে মেডিকেলে ভরতি করতে মেডিকেলে নিয়ে আসেন তাঁরা।


সেলিমের মা জানান, আট বছর আগে ছেলে মানসিক ভারসাম্য হারায়। একাধিকবার ছেলেকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে গিয়েছেন। শিলিগুড়ি, বহরমপুর কোথাও ছেলেকে ভরতি করা যাচ্ছে না। এদিকে, ছেলে যখন তখন পালিয়ে যাচ্ছে। একবার পালিয়ে যাওয়ার পাঁচমাস পর গোহাটি থেকে ছেলেকে নিয়ে আসি। বাধ্য হয়ে ছেলেকে শিকল দিয়ে বেঁধে রাখতে হয়।





আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page