top of page

বিতাড়িত গৃহবধূ ও সন্তানের পাশে দাঁড়ালেন হাসপাতালের নার্স

ঘর থেকে বিতাড়িত সন্তান সহ এক মহিলার পাশে দাঁড়ালেন এক নার্স। বর্তমানে ওই মহিলার আশ্রয় হয়েছে হাসপাতালে। ওই মহিলাকে ঘরে ফেরাতে উদ্যোগী হয়েছে জেলার এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাও।



বাড়ি থেকে বিতাড়িত মহিলার নাম তসলিমা বিবি, বয়স ২৩৷ বছর ছয়েক আগে চাঁচলের দারকিনারা গ্রামের যুবক মানোয়ারুল ইসলামের সঙ্গে পরিচয় তসলিমার৷ বছর তিনেক আগে বিয়ে করেন তাঁরা। বিয়ের দেড় বছর পরে এক কন্যাসন্তানের জন্ম দেন তসলিমা। তসলিমার অভিযোগ, বিয়ের পর থেকেই তাঁর ওপর অত্যাচার শুরু করে স্বামী, শ্বশুর ও শাশুড়ি। গ্রামের এনিয়ে বেশ কয়েকবার সালিশি সভাও বসে। কিন্তু তাতেও ফল মেলেনি। বাধ্য হয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন তসলিমা বিবি। এরপর অভিযোগ প্রত্যাহার করার জন্য চলতে থাকে নির্যাতন। কিন্তু ততদিনে মামলা কোর্টে গড়িয়েছে। অভিযোগ প্রত্যাহার না করায় তসলিমা বিবি ও তাঁর সন্তানকে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয় শ্বশুরবাড়ির লোকজন।


সমস্ত ঘটনা জানতে পেরে চাঁচল সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের এক নার্স লাবণ্য সান্যাল হাসপাতালে ভর্তি করেন তসলিমাকে। তসলিমাকে ঘরে ফেরাতে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সঙ্গে যোগাযোগ করে লাবণ্যদেবী। তসলিমাকে ঘরে ফেরাতে উদ্যোগী হয়েছে ওই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা।


প্রতিদিন মালদার টাটকা নিউজ হোয়াটস্ অ্যাপে পেতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page