top of page

অসমে থাকার আর্জি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে বৃদ্ধা

নাম নেই এনআরসি তালিকায়। আদালতের দ্বারস্থ হয়ে সময়ের মধ্যে নথি সংগ্রহ করতে পারেননি ৭১ বছরের বৃদ্ধা দেবী সরকার। অসমে গেলেই তাঁকে ডিটেনশন ক্যাম্পে পাঠিয়ে দেওয়া হবে। অবশেষে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে আর্জি জানালেন ওই বৃদ্ধা।



পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, মা-বাবার মৃত্যুর পরে কাকার হাত ধরে ছোটোবেলায় বাংলাদেশ থেকে ভারতে চলে আসেন দেবী সরকার। পুরাতন মালদার দেবীপুর কলোনিতে বসবাস শুরু করেন তাঁরা। ১৯৬৬ সালে দ্যুতিমান সরকার নামে এক মৎস্যজীবীর সঙ্গে বিয়ে হয় তাঁর। ১৯৬৯ সালে তাঁরা অসমে চলে যান। ১৯৭৭ সালে মাজুলি জেলায় বাড়ি করেন। কিন্তু ১৯৭১ সালের আগে কোনো নথি না থাকায় নাম ওঠেনি এনআরসি তালিকায়। এরপরেই আদালতের দ্বারস্থ হন তিনি। আদালত থেকে বাবার বাড়ির নথি জমা করার নির্দেশ পেয়েই ছুটে আসেন পুরাতন মালদায়। কিন্তু এখনও পর্যন্ত কোনো নথি জোগাড় করতে পারেননি দেবী সরকার। বাধ্য হয়েই মুখ্যমন্ত্রীর কাছে অসমে থাকার ব্যবস্থা করার আর্জি জানান তিনি।


দেবী সরকারের ভাই গোবিন্দ হালদার জানান, অসমের আদালত ১১ নভেম্বরের মধ্যে তাঁর দিদিকে সমস্ত নথি জমা দিতে বলেছে৷ কিন্তু এখনও পর্যন্ত কোনো নথি জোগাড় করা যায়নি। এখন কি করণীয় কিছুই বুঝতে পারছেন না। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে আবেদন, তাঁর দিদিকে অসমে থাকার ব্যবস্থা করে দেওয়া হোক।


প্রতীকী ছবি।

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page