top of page

পুলিশ ফাঁড়িতে বসল বিয়ের আসর, খুশির হাওয়া এলাকায়

পুলিশকর্মীদের উদ্যোগে বিয়ের আয়োজন। রীতিমতো নাচ-গানের আসর নিয়ে বিয়ের অনুষ্ঠান। ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে হরিশ্চন্দ্রপুরে।


স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, কুমেদপুর এলাকার মাখনা তৈরির কারখানায় কাজ করতে এসেছিলেন বিহারের কাটিহার জেলার বাসিন্দা সোনাদেবী সিং (২৩)। বেশ কয়েকবছর আগে মৃত্যু হয়েছে তাঁর বাবা-মার। আর্থিক উপার্জনের তাগিদে তিনি মাখনার কাজে এসেছিলেন। ওই কারখানাতেই তাঁর পরিচয় হয় বিহারেরই দারভাঙ্গা জেলার শংকর সাহানি (২৫) নামে এক যুবকের। তাঁদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। গত ছয় মাস ধরে তাঁরা একসঙ্গে থাকতেন। কিন্তু সোনাদেবী বিয়ের কথা বললেই পিছোতে থাকত শংকর। অবশেষে পুলিশের দ্বারস্থ হন সোনাদেবী। বিষয়টি জানতে পেরে শংকরকে জিজ্ঞাসাবাদ করতেই সোনাদেবীর সঙ্গে নিজের ঘনিষ্ঠতার কথা স্বীকারও করেন তিনি। অবশেষে দু’জনের বিয়ের ব্যবস্থা করে পুলিশ। হরিশ্চন্দ্রপুর থানার আইসি সঞ্জয়কুমার দাসের উদ্যোগে গতকাল রাতে আউট পোস্ট প্রাঙ্গণে বসে বিয়ের আসর। গানের সঙ্গে মিষ্টিমুখ করে বিয়ে সম্পন্ন হয়।



পুলিশের এই উদ্যোগে খুশি স্থানীয়রা। তাঁদের দাবি, এই যুবক-যুবতির মধ্যে গত ছয় মাস ধরে সম্পর্ক ছিল। কিন্তু ছেলেটি মেয়েটিকে বিয়ে করছিল না। মেয়েটি পুলিশকে জানালে পুলিশ দুজনের বিয়ে দেওয়ার উদ্যোগ নেয়।




আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page