top of page

মুখ্যমন্ত্রীর কাছে স্বেচ্ছামৃত্যুর আবেদন ক্যান্সার আক্রান্ত শিক্ষকের

ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে পড়ায় স্কুলে যেতে পারছিলেন না কালিয়াচক ২ নম্বর ব্লকের দুর্লভপুর হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক সুব্রতকুমার রায়৷ স্কুল ম্যানেজিং কমিটি ও জেলা শিক্ষা দফতরে দেড় বছরের ছুটির আবেদন করেন সুব্রতবাবু। কিন্তু সেই আবেদনও মঞ্জুর হয়নি। দীর্ঘদিন ধরে স্কুলে না যাওয়ার বেতন বন্ধ হয়ে যায় সুব্রতবাবুর। অবশেষে বেতন চালুর দাবিতে মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি পাঠিয়েছেন সুব্রতবাবু। বেতন চালু না হলে স্বেচ্ছামৃত্যুর আবেদনও জানিয়েছেন দুর্লভপুর হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক। বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন জেলাশাসক।


সুব্রতবাবু মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি মারফত জানিয়েছেন, তাঁর শরীরে ক্যান্সার ধরা পড়েছে। এক্ষেত্রে স্পেশাল ছুটি পাওয়া যায় বলে তাঁর জানা রয়েছে। সেই ছুটির দাবিতে তিনি স্কুল ও শিক্ষা দফতরে আবেদন করেছিলেন। কিন্তু তাঁর সেই ছুটি মঞ্জুর হয়নি। স্কুলের বেতন বন্ধ হয়ে যাওয়ায় তাঁর পরিবারের সমস্ত উপার্জন বন্ধ হয়ে গিয়েছে। তাই তিনি আবেদন জানাচ্ছেন, পরিবার ও নিজের জীবন বাঁচাতে তাঁর বেতন চালু করা হোক।



সুব্রতবাবু জানান,

আমার একমাত্র ভরসা আমার স্কুলের বেতন৷ স্কুলের বেতন দিয়েই পুরো সংসার চলে। কিন্তু ক্যান্সার আক্রান্ত হওয়ায় স্কুলে যেতে পারছি না। আমার ছুটি মঞ্জুর হয়নি। এদিকে বেতন ও বন্ধ হয়ে গিয়েছে। এখন আমার বেঁচে ওঠার ক্ষমতা নেই৷ আমি চিকিৎসাও করাতে পারছি না৷ তাই মুখ্যমন্ত্রীর কাছে স্বেচ্ছামৃত্যুর আবেদন জানিয়েছি৷

সুব্রতবাবুর স্ত্রী মিতা ঝা রায় জানান, স্বামীর বেতন চালুর জন্য সব জায়গায় আবেদন করেছি৷ কিন্তু এখনও পর্যন্ত কিছুই হয়নি। টাকার অভাবে স্বামীর চিকিৎসার রসদও জোগাড় করতে পারছি না৷ পরিস্থিতির চাপে স্বামী মুখ্যমন্ত্রীর কাছে স্বেচ্ছা মৃত্যুর আবেদন জানিয়েছেন৷ মুখ্যমন্ত্রীর কাছে আবেদন, স্বামীর বেতন চালু করতে পদক্ষেপ নিন৷

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page