top of page

মর্মান্তিক! হরিশ্চন্দ্রপুরে জলে ডুবে মৃত দুই বোন

একটানা পাঁচদিন ভারী বৃষ্টির পর পুকুর ভরে গেছে জলে। শনিবার দুপুরে ভরা পুকুরে স্নান করতে গিয়ে জলে তলিয়ে মৃত্যু হল একই পরিবারের দুই বালিকার। ঘটনাটি ঘটেছে হরিশ্চন্দ্রপুর ১ ব্লকের তেতুবারি এলাকায়। এই ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে এলাকাজুড়ে।


Two sisters drown in Harishchandrapur

জলে তলিয়ে মৃত দুই বালিকার নাম দীপা মহালদার (১৩) ও প্রিয়া মহালদার (১০)। স্থানীয় বাসিন্দা ও পরিবারের সদস্যরা জানালেন, এদিন দুপুর বারোটা নাগাদ স্থানীয় দেবীসাগর পুকুরে স্নান করতে যায় এই দুই বোন। সাধারণত অন্যদিন তারা পুকুরে স্নান করতে যেত না। এদিন স্নান করতে গিয়েই ঘটে বিপত্তি। টানা ক’দিনের প্রবল বৃষ্টিতে পুকুর জলে থৈথৈ করছে। সাথে দেবীসাগর পুকুরের গভীরতা গ্রামের অন্য পুকুরের থেকে অনেক বেশি। ফলে জলে ডুবে যায় দুই বোন। সেই সময় আশেপাশে উপস্থিত লোকদের চিৎকার শুনে ছুটে আসে তার বাড়ির লোকেরা। গভীর খাল থেকে উদ্ধার হয় দুই বোনের দেহ। জানা গেছে, এর আগে ওই পুকুরে স্নান করতে গিয়ে জলে ডুবে দুইজনের মৃত্যু হয়েছিল। স্থানীয় বাসিন্দারা ওই পুকুরে স্নান বন্ধ করে দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন।


শেফালী সাহা নামে এক স্থানীয় বাসিন্দা বলেন, "এর আগেও এই দেবীসাগরের জলে ডুবে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। আজও একটি মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে গেল। একই সাথে দুই বোন পুকুরে ডুবে মারা গেল। তাই আমরা চাইছি এই পুকুরটি যেন বন্ধ করে দেওয়া হয়।" আরেক স্থানীয় বাসিন্দা মিনা পরিহারের একই দাবি। তিনিও অবিলম্বে ওই পুকুরে স্নান নিষিদ্ধ করার দাবি জানিয়েছেন।

মৃত বালিকাদের কাকু কার্তিক মহালদার বলেন, "ওরা কোনদিন পুকুরে যায় না স্নান করতে। আমার ছোটো মেয়ের সঙ্গেই তো খেলা করছিল। জানিনা কখন চলে গেল পুকুরে স্নান করতে। লোকজনের চিৎকার শুনে আমরা বেরিয়ে আসি। পুকুরের গভীর খাল থেকে দু’জনের দেহ উদ্ধার হয়।"




এই ঘটনায় যথেষ্ট চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকাজুড়ে। একই পরিবারের ১৩ এবং ১০ বছরের দুটি বাচ্চা মেয়ের আকস্মিক মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ গ্রামের সকলেই।


আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page