top of page

লোকসভা নির্বাচনের আগে গোষ্ঠীকলহে অস্বস্তিতে তৃণমূল

লোকসভা নির্বাচনের আগে ফের তৃণমূলের গোষ্ঠীকলহ প্রকাশ্যে। দলীয় লেটার প্যাডে অঞ্চল চেয়ারম্যানকে বহিষ্কার করার চিঠি ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়। অঞ্চল সভাপতির দাবি, পঞ্চায়েত নির্বাচনে সাবোতাজ করার জন্যই বহিষ্কার করা হয়েছে। এনিয়ে অঞ্চল সভাপতির বিরুদ্ধে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন অঞ্চল সভাপতি সহ বহিষ্কৃত আরেক নেতা। লোকসভা নির্বাচনের আগে ফের গোষ্ঠীকলহে অস্বস্তিতে জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব।


হরিশ্চন্দ্রপুর-২ ব্লকের ভালুকা অঞ্চলের তৃণমূল সভাপতি ধীরেন্দ্রনাথ সাহা দলীয় লেটার প্যাডে অঞ্চল চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক ও প্রাক্তন ব্লক সম্পাদক বিবেকচন্দ্রকে বহিষ্কারের কথা ঘোষণা করেছেন। দল বিরোধী কাজের জন্যই দল থেকে বহিষ্কার করার কথাও উল্লেখ রয়েছে চিঠিতে। এমনই একটি চিঠি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। যদিও সেই চিঠির সত্যতা যাচাই করেনি আমাদের মালদা।


ধীরেন্দ্রনাথবাবুর দাবি,

গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে এই দুইজন অন্য দলের হয়ে কাজ করেছিল। এনিয়ে অঞ্চল কমিটির বৈঠকে দু’জনকে বহিষ্কার করার রেজুলেশন করা হয়। তাঁদের বহিষ্কারের সুপারিশ করে ব্লক সভাপতিকে চিঠি পাঠানো হয়েছে। তবে এই চিঠি কীভাবে ভাইরাল হল জানা নেই।


মোজাম্মেল হক জানান,

গত পাঁচ বছর ভালুকা গ্রামপঞ্চায়েত বোর্ডকে নেতৃত্ব দিয়েছে এরাই৷ এরা যদি মানুষের কাজ করত, তবে এই পরিস্থিতি হত না। মানুষের পছন্দের প্রার্থীর বদলে অন্যকে টিকিট দেওয়া হয়েছে। তাছাড়া অঞ্চল সভাপতি অঞ্চল চেয়ারম্যানকে বহিষ্কার করতে পারে না, বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি।

জেলা তৃণমূলের সহ সভাপতি শুভময় বসু জানান, গোষ্ঠীকলহের কোনও বিষয় নেই৷ দলের সবকিছুই রাজ্য, জেলা, ব্লক ও অঞ্চল কমিটিকে নিয়ে হয়৷ কেউ নিয়ম ভাঙলে দল তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে৷


আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page