মালদাকে অস্ত্র তৈরির হাব বানাতে চায় দুষ্কৃতীরা

মালদাকে অস্ত্র তৈরির হাব বানাতে চায় দুষ্কৃতীরা

একদিকে বিহার, আর একদিকে ঝাড়খণ্ড তারপর বিস্তীর্ণ সীমান্ত রয়েছে বাংলাদেশের সঙ্গে৷ এমন ভৌগোলিক অবস্থানে থাকা মালদা এখন অস্ত্র কারবারিদের নিশানায়৷ বাইরে থেকে কিনে এনে নয়, রীতিমতো মালদার বুকের ওপর বসে কারখানা বানিয়ে আগ্নেয়াস্ত্র তৈরির ভয়ংকর খেলায় মেতেছে দুষ্কৃতীরা৷ তবে হাত গুটিয়ে বসে নেই পুলিশ৷ সতর্ক নজর রেখেছে বিএসএফও৷ আর সে কারণেই অক্টোবরের শুরুতে দু’দুবার বিপুল পরিমাণ অস্ত্রের হদিস পেয়েছে পুলিশ ও বিএসএফ৷



অক্টোবরের ২ তারিখ কালিয়াচক সীমান্তে বস্তা ভরতি আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করে বিএসএফ৷ উদ্ধার হয় ৭টি ৭.৬৫ এমএম পিস্তল, ১৫টি কার্তুজ, ১৩টি ম্যাগাজিন৷ বিএসএফের ডিআইজি জর্জ মাঞ্জুরানের দেওয়া তথ্য বলছে, এবছরে এখনো পর্যন্ত ২১টি পিস্তল উদ্ধার করেছে বিএসএফ৷ এর মধ্যে অক্টোবরের প্রথমেই পাওয়া গেল ৭টি পিস্তল৷


এর ঠিক দিন কয়েক পর কালিয়াচকে হদিস মিলল আস্ত অস্ত্র কারখানার৷ গ্রিল ফ্যাক্টরির আড়ালে রমরমিয়ে এই কারবার চলছিল৷

কালিয়াচকের শেরশাহি স্ট্যান্ডের কাছে ফরিদ শেখ নামে এক ব্যক্তির গ্রিল ফ্যাক্টরিতে গোপনে অস্ত্র তৈরির কারখানা গড়ে উঠেছিল৷ গোপন সূত্রে খবর পেয়ে ৬ তারিখ পুলিশ ওই কারখানায় হানা দেয়৷ হাতেনাতে ধরে ফেলে তামরেজ শেখ নামে বছর ছাব্বিশের এক যুবককে৷ পুলিশের জালে ধরা পড়ে যায় ছেচল্লিশের সাহাবুদ্দিন ওরফে সাহেবও৷ কালিয়াচকের জনবহুল জায়গায় গ্রিল ফ্যাক্টরির আড়ালে মূলত এই দুইজনই আগ্নেয়াস্ত্র তৈরির কারিগর ছিল৷ তাদের বাড়ি মুঙ্গেরে৷ ভিনরাজ্য থেকে মালদায় এসে অস্ত্র কারখানা গড়ে কারবার চালানোর ঘটনা অবশ্য এই প্রথম নয়৷ প্রত্যন্ত কোনো এলাকা নয়, খোদ পুরাতন মালদা শহরের মধ্যে অস্ত্র কারখানা ফুলে ফেঁপে উঠেছিল৷ ৩১ মে পুরাতন মালদা শহরের নলডুবি মণ্ডলপাড়ায় অভিযান চালাতে গিয়ে চক্ষু চড়কগাছ হয়ে যায় পুলিশের৷ এই এলাকাতেও একটি জনবহুল এলাকার মধ্যে বাড়িভাড়া নিয়ে অস্ত্র কারখানা চলছিল রমরমিয়ে৷ অস্ত্র উদ্ধারের পাশাপাশি আগ্নেয়াস্ত্র তৈরির বিপুল সরঞ্জামও পায় পুলিশ৷ নলডুবির যে বাড়িতে অস্ত্র কারখানাটি চলছিল, তার মালিক বিহারের বাসিন্দা লক্ষ্মণ সাহা৷ মাস কয়েক আগে আক্রাম নামে ব্যক্তিকে বাড়িটি ভাড়া দিয়েছিল লক্ষ্মণ সাহা৷ এলাকার বাসিন্দারা ঘুণাক্ষরেও টের পাননি যে পাড়ার মধ্যে অস্ত্রের কারখানা গড়ে উঠেছে৷ আর সেখানে বিহার-ঝাড়খণ্ডের ১০-১২ জনের দুষ্কৃতী দল রীতিমতো ঘাঁটি গেড়ে কারবার চালাচ্ছে৷


পুলিশসূত্রে খবর, নলডুবির বাড়িতে তৈরি অস্ত্র বিক্রির জন্য নিয়ে যাওয়া হল মুঙ্গেরে৷ আবার কালিয়াচকের ক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে, বস্তায় করে বাংলাদেশে অস্ত্র পাচারের চেষ্টা চলছিল৷ যার সারমর্ম হল মালদাকে কার্যত অস্ত্র তৈরির হাব বানাতে চাইছে আন্তঃরাষ্ট্রীয় অস্ত্র কারবারিরা৷ মূলত ভৌগোলিক অবস্থানের জন্যই মালদাকে বেছে নিয়েছে দুষ্কৃতীরা৷ আরও একটা বিষয় লক্ষণীয় - অস্ত্র কারবারিরা কোনো প্রত্যন্ত এলাকায় নয়, জনবহুল অঞ্চলে কারখানা গড়ে আগ্নেয়াস্ত্র বানাচ্ছে৷ ভাড়াটিয়া সেজে সাধারণ মানুষের মধ্যে মিশে গিয়ে মারণাস্ত্রের কারবার চালাচ্ছে দুষ্কৃতীরা৷


#Malda #Kaliachak

হেডলাইন

প্রতিবেদন

কোয়রান্টিন সেন্টারে জন্মদিনের পার্টি, নজির গড়ল দীপান্বিতা

জন্মদিনের অনুষ্ঠানে বন্ধুদের বাড়িতে ডেকে খাওয়ানো নয়, পরিযায়ী শ্রমিকদের মধ্যে খাবার বিতরণ করে নজির সৃষ্টি করল ষষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রী। গত...

বিজ্ঞাপন

ফলো করুন
  • Facebook
  • Instagram
  • Twitter
  • YouTube
  • Pinterest

সব খবর ইনবক্সে!

প্রতিদিন খবরের আপডেট পেতে সাবস্ক্রাইব করুন

Aamader Malda Worldwide, the only media of your hometown and its thoughts. Here you can share and express your views and thoughts and you'll get here the essence of MALDAIYA CULT...

You can reach us via email or phone.  P +91 3512-260260  E response@aamadermalda.in

  • Facebook
  • Twitter
  • YouTube
  • Pinterest
  • Instagram
  • RSS

Copyright © 2020 Aamader Malda. All Rights Reserved.