top of page

বন্যাত্রাণের পর টেন্ডার দুর্নীতির অভিযোগ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতির বিরুদ্ধে

মালদার হরিশ্চন্দ্রপুরে বন্যাত্রাণ দুর্নীতির ঘটনায় এফআইআর হওয়ার পর দীর্ঘদিন ধরে ফেরার ছিলেন। সম্প্রতি জামিন পেয়েছেন। আদালত ওই মামলার তদন্ত ভার সঁপেছে ক্যাগকে। সেই বন্যাত্রাণ দুর্নীতির রেশ না কাটতেই ফের অনিয়মের অভিযোগ উঠল পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতির বিরুদ্ধে।


এবার স্কুলঘর সংস্কারের জন্য টেন্ডার বিলিকে ঘিরে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে হরিশ্চন্দ্রপুর-১ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি কোয়েল দাসের বিরুদ্ধে। পঞ্চায়েত সমিতির কয়েকজন সদস্য এমনকি বিডিওর যোগসাজশে ওই বেনিয়ম করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। আর ওই অভিযোগ তুলেছেন পঞ্চায়েত সমিতিরই এক তৃণমূল সদস্য সুজাতা সাহা। যদিও বিরোধী দলনেত্রী হিসেবে প্রশাসনের সর্বস্তরে লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন ওই সদস্যা সুজাতা সাহা। কংগ্রেস থেকে জয়ী হয়ে বিরোধী দলনেত্রী হন তিনি। কিন্তু পরে তিনি তৃণমূলে যোগ দেন।


প্রশাসন ও হরিশ্চন্দ্রপুর-১ পঞ্চায়েত সমিতি সূত্রে জানা গিয়েছে, হরিশ্চন্দ্রপুর-১ ব্লকের আটটি প্রাথমিক স্কুল সংস্কারের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ভবন সংস্কারের পাশাপাশি বৈদ্যুতিক কাজকর্মও রয়েছে। এজন্য বরাদ্দ হয়েছে ২৫ লক্ষ টাকা। সুজাতা সাহার অভিযোগ, টেন্ডার দেওয়ার আগে নিয়ম মেনে শিক্ষা স্থানীয় সমিতির সভা ডাকার কথা। কিন্তু তা করা হয়নি। এছাড়া টেন্ডার প্রক্রিয়ার পুরো বিষয়টি জানানোর কথা বিরোধী দলনেত্রীকেও। সেসব কিছুই করা হয়নি। গোপনে টেন্ডার করা হয়েছে। যাদের ভবন সংস্কার ও বৈদ্যুতিক কাজকর্মের অভিজ্ঞতা রয়েছে তাঁদের কাজের বরাত পাওয়ার কথা। কিন্তু যে সব ঠিকাদারদের কাজ দেওয়া হয়েছে তাদের সেই অভিজ্ঞতা নিয়েও সংশয় প্রকাশ করেছেন সুজাতা। পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি, বিডিও ও কয়েকজন সদস্য চক্রান্ত করে সরকারি টাকা নয়ছয় করতে টেন্ডার বিলিতে অনিয়ম করেছে।



উল্লেখ্য, বন্যাত্রাণ বিলি দুর্নীতির অভিযোগে দীর্ঘদিন ফেরার থাকার পর জামিন পেয়েছেন পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি কোয়েল দাস। একই ঘটনায় সুজাতার বিরুদ্ধেও অভিযোগ হয়। আদালত থেকে জামিন পাওয়ার পর তাঁর স্বাক্ষর জাল করা হয়েছে সুজাতা বলে দাবি করেছিলেন। এক্ষেত্রেও ফের অনিয়ম হওয়ায় তাঁকে ফাঁসানো হতে পারে বলে আশঙ্কা করে প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েছেন সুজাতা।



হরিশ্চন্দ্রপুর-১ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি কোয়েল বলেন, অভিযোগ ভিত্তিহীন। সুজাতা সাহা যেভাবে অভিযোগ করছেন তাতে ওনাকে বিরোধী দলনেত্রী মনে হচ্ছে। উনি তৃণমূলে রয়েছেন নাকি কংগ্রেসে তা আগে জানাক উনি।



আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

Comentários


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page