কংগ্রেস এখন ফুটো নৌকাঃ শুভেন্দু

কংগ্রেস এখন ফুটো নৌকাঃ শুভেন্দু

আজ পুরাতন মালদার সাহাপুর এলাকার তাঁতিপাড়া মাঠে জেলা তৃণমূলের কর্মী সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়৷ দুই শীর্ষ নেতা মুকুল রায় ও শুভেন্দু অধিকারী ছাড়াও সেখানে উপস্থিত ছিলেন জেলা তৃণমূল সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন, প্রাক্তন মন্ত্রী সাবিত্রী মিত্র, জেলা যুব তৃণমূল সভাপতি অম্লান ভাদুরি, ইংরেজবাজার ও পুরাতন মালদা পৌরসভার দুই চেয়ারম্যান নীহাররঞ্জন ঘোষ ও কার্তিক ঘোষ, তৃণমূল নেতা আবু নাসের খান চৌধুরি, বিভূতিভূষণ ঘোষ, আশিস কুণ্ডু. সুমালা আগরওয়ালা, গায়েত্রী ঘোষ সহ আরও অনেকজন৷ এদিনের সম্মেলনে বিজেপি ছেড়ে পুরাতন মালদা পৌরসভার ৩ কাউন্সিলর তৃণমূলে যোগ দেন৷ তাঁদের সঙ্গে শাসক শিবিরে এসেছেন এক নির্দল কাউন্সিলরও৷ তবে জেলায় না থাকার জন্য এদিন সম্মেলনে অনুপস্থিত ছিলেন কৃষ্ণেন্দুনারায়ণ চৌধুরি৷ এদিনের সম্মেলনে হাজার তিনেক নেতা-কর্মী অংশ নেন৷


বাম-কংগ্রেস নয়, পঞ্চায়েত নির্বাচনে বিজেপিকেই প্রধান প্রতিপক্ষ বলে মনে করছে রাজ্যের শাসক দল৷একইসঙ্গে মালদা জেলায় আত্ম সমালোচনাতেও জোর দিচ্ছে নেতৃত্ব৷এদিন পুরাতন মালদায় দলের কর্মী সম্মেলনে এই বার্তাই দিলেন তৃণমূলের দুই শীর্ষ নেতা মুকুল রায় ও শুভেন্দু অধিকারী৷ এখন থেকেই তাঁরা বুথে বুথে নিজেদের সংগঠন শক্ত করতে উপস্থিত তৃণমূল নেতৃত্বকে নির্দেশ দেন৷

কর্মী সম্মেলন সেরে ফেরার পথে পথ দুর্ঘটনায় মৃত্যু

সম্মেলনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে শুভেন্দুবাবু মালদা জেলা তৃণমূল নেতৃত্বকে আত্ম সমালোচনা করার পরামর্শ দেন৷ তিনি বলেন, রাজ্য জুড়ে তৃণমূল এগিয়ে গেলেও এই জেলায় তাঁরা কখনও তেমন সাফল্য পাননি৷ তাই এবার আর দল পরিবর্তন করে নয়, ভোটারদের পরিবর্তন করে ২০১৮ সালে তাঁরা মালদা জেলা পরিষদ দখল করবেন৷ শুভেন্দুবাবু এদিন বলেন, কংগ্রেস এখন ফুটো নৌকা৷ রায়গঞ্জ পৌর নির্বাচনেও তারা হেরেছে৷ আর সিপিএমের অস্তিত্ব এখন আর নেই৷ বামেরা এখন সব রাম হয়ে গিয়েছে৷ এরা সব একজোট হয়ে তৃণমূলকে হারানোর চেষ্টা করছে৷ বিজেপির বিস্তারক যোজনার উল্লেখ না করে তিনি বলেন, তারা এখন বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে মানুষকে ভুল বোঝাচ্ছে৷ তাই তৃণমূল কর্মীদেরও মানুষকে সত্যি কথাটা জানাতে হবে৷ তাঁরা জানেন, মানুষের আস্থা কিংবা আবেগ ধর্মকে নিয়েই৷ সেকারণেই মুখ্যমন্ত্রী সর্বধর্ম পালনের কথা বলেন৷ সেকথা সবাইকে মনে রাখতে হবে৷

মুকুলবাবু দলের জেলা নেতৃত্বের উদ্দেশ্যে বার্তা দিয়ে বলেন, মালদা জেলায় দলের সংগঠন এখনও ভালো নয়৷ বিভিন্ন সরকারি পদে মুখ্যমন্ত্রী অনুকম্পা করে জেলার দলীয় নেতানেত্রীদের বসিয়েছেন৷ এই জেলার নেতৃত্ব যখন কলকাতা যান তখন অন্যান্য জেলার দলীয় নেতৃত্বও তাঁদের অনুকম্পার চোখে দেখেন৷ এই অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে৷ মঞ্চে এলাম, বক্তৃতা দিলাম, আর চলে গেলাম করলে হবে না৷ সবাইকে দায়িত্ব নিতে হবে৷ কারোর বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকতেই পারে৷ তাতে অভিমান করে থাকলে চলবে না৷ প্রয়োজনে দলের উপর মহলকে তা জানাতে হবে৷ একইসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আমলে রাজ্যের যা যা উন্নয়ন হয়েছে তা মানুষকে জানাতে হবে৷ তাতেই সাফল্য আসবে৷ কারণ এই জেলার মানুষ এতদিন কংগ্রেসের পাশে থাকলেও কংগ্রেস এখন শুকনো নদী৷ দেশের ২৭টি রাজ্যের মধ্যে মাত্র দুটিতে তারা ক্ষমতায় রয়েছে৷তারা এখন অস্তিত্বের সংকটে ভুগছে৷

বিজ্ঞাপন

হেডলাইন

প্রতিবেদন

রাতভর বিনিদ্র হাট

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সেই ছড়াটি মনে আছে তো? ‘হাট বসেছে শুক্রবারে, বকসিগঞ্জের পদ্মা পাড়ে৷ জিনিসপত্র জুটিয়ে এনে, গ্রামের মানুষ বেচে কেনে’...

বিজ্ঞাপন

ফলো করুন
  • Facebook
  • Instagram
  • Twitter
  • YouTube
  • Pinterest
পপুলার

ছয় হাজার লিটার স্যানিটাইজার তৈরি করল এক স্বনির্ভর গোষ্ঠী

জেলাপ্রশাসনের উদ্যোগে স্যানিটাইজার তৈরির প্রক্রিয়া খতিয়ে দেখলেন জেলাশাসক রাজর্ষি মিত্র। শনিবার দুপুরে ইংরেজবাজার ব্লকের কোতোয়ালি গ্রাম...

সব খবর ইনবক্সে!

প্রতিদিন খবরের আপডেট পেতে সাবস্ক্রাইব করুন

বিজ্ঞাপন

Aamader Malda Worldwide, the only media of your hometown and its thoughts. Here you can share and express your views and thoughts and you'll get here the essence of MALDAIYA CULT...

You can reach us via email or phone.  P +91 3512-260260  E response@aamadermalda.in

  • Facebook
  • Twitter
  • YouTube
  • Pinterest
  • Instagram
  • RSS

Copyright © 2020 Aamader Malda. All Rights Reserved.