top of page

বিবাহবহির্ভূত সম্পর্ক নিয়ে সন্দেহ, অন্তঃসত্ত্বা বধূকে অমানুষিক অত্যাচার

মধ্যযুগীয় বর্বরতার সাক্ষী থাকল গাজোল৷ শুধুমাত্র সন্দেহের বশে সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা এক আদিবাসী বধূর উপর অমানুষিক অত্যাচার চালাল গ্রামের মাতব্বররা৷ মাথার চুল কেটে, গলায় জুতোর মালা পরিয়ে ওই গৃহবধূকে গোটা গ্রাম ঘোরানো হয়েছে বলে অভিযোগ৷ আরও অভিযোগ, বধূকে দেড় লক্ষ টাকা জরিমানারও নিদান দিয়েছে গ্রামের মাতব্বররা৷ সুবিচারের আশায় ওই বধূ পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছেন৷ তবে এখনও অধরা অভিযুক্তরা৷


ঘটনাটি ঘটেছে গাজোল থানার পাহাড়ভিটা গ্রামে৷ ৩৫ বছর বয়সী ওই আদিবাসী গৃহবধূর বক্তব্য, ক’দিন আগে তিনি গাজোল থেকে বাজার সেরে বাসে চেপে বাড়ি ফিরছিলেন৷ গ্রামেরই এক যুবক সেই বাসে বাড়ি ফিরছিল৷ তিনি পরিচিত সেই পাশে বসেন৷ তা দেখে ফেলে গ্রামের কয়েকজন৷ তারা তাঁর সঙ্গে ওই যুবকের অবৈধ সম্পর্ক রয়েছে বলে সন্দেহ করে৷ তারা গ্রামে তাঁর বিরুদ্ধে এনিয়ে প্রচার করে৷ এরপরেই শুরু হয় অত্যাচারের পর্ব৷ এই ঘটনা নিয়ে গ্রামে সালিশি সভা বসায় গ্রামের মাতব্বররা৷ সভার পরেই তাঁর উপর চড়াও হয় গ্রামের ৭ যুবক যতীন কোড়া, অঞ্জন কোড়া, সঞ্জয় কোড়া, লালন কোড়া, খিটকান্দু কোড়া, করল কোড়া ও বুক্কা কোড়া৷ তারা তাঁর মাথার চুল কেটে দেয়৷ তাঁর শ্লীলতাহানি করে৷ গলায় জুতোর মালা পরিয়ে গোটা গ্রামে ঘোরায়৷ অবশেষে স্থানীয় কিছু মানুষ গতকাল তাঁকে গাজোল গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে তাঁর চিকিৎসা করান৷ গতকালই তিনি গাজোল থানায় এব্যাপারে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন৷


Inhuman torture on pregnant woman

মাথার চুল কেটে, গলায় জুতোর মালা পরিয়ে ওই গৃহবধূকে গোটা গ্রাম ঘোরানো হয়েছে বলে অভিযোগ৷ আরও অভিযোগ, বধূকে দেড় লক্ষ টাকা জরিমানারও নিদান দিয়েছে গ্রামের মাতব্বররা৷


এমন একটি ঘটনা অস্বস্তিতে ফেলেছে পুলিশকেও৷ অভিযোগ পাওয়ার পর গাজোল থানার পুলিশ অভিযুক্তদের খোঁজে গ্রামে যায়৷ কিন্তু পুলিশে অভিযোগ দায়ের হওয়ার পরেই অভিযুক্তরা এলাকা ছেড়ে পালিয়েছে৷ পুলিশ ফেরার অভিযুক্তদের খোঁজে তল্লাশি শুরু করলেও এব্যাপারে সংবাদমাধ্যমের সামনে মুখ খুলতে নারাজ৷


আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page