top of page

আলিশার পর কালিয়াচকের নাম উজ্জ্বল করল নিশাদ

দরিদ্র পরিবার থেকে সিভিস সার্ভিসেস পরীক্ষায় সফল হয়ে ডেপুটি পুলিশ সুপার পদ মর্যাদার আধিকারিক হতে চলেছেন কালিয়াচকের বামনগ্রামের যুবক নিশাদ খালেদ। কয়েকদিন আগেই ইংল্যান্ডের ওয়ারিক ইউনিভার্সিটিতে অ্যাপ্লায়েড থিয়েটারে মাস্টার্স কোর্সে প্রথম স্থান অধিকার করে কালিয়াচকের নাম উজ্জ্বল করেছিল আলিশা ইবকার। এবারে কালিয়াচকের মাটি থেকে উঠে এল ডব্লিউবিসিএস। এক সময়ের কালিয়াচকে যে বদল এসেছে তা খালেদের মুখেও উঠে এসেছে।


স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, প্লাস্টিক কুড়িয়ে কারখানায় বিক্রি করে সংসার চালান মাহবুবুল শেখ। তবে ছেলের শিক্ষা সঙ্গে কোনোরকম আপস করেননি তিনি। কয়েক দশক আগে যখন বোমা-গুলির আতুর ঘর ছিল কালিয়াচক, সেই সময়ে ছেলেকে মানুষ করেছেন তিনি। আজ ছেলের সাফল্যে বুক চওড়া হয়ে গিয়েছে তাঁর। খুশি নিশাদের মা উনজেলা বিবিও।


নিশাদ খালেদ জানিয়েছেন,

ছোটো থেকেই তিনি আল আমিন মিশনে পাঠরত ছিলেন। সেই শিক্ষা সংস্থার সহযোগিতায় ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার সুযোগ পান। ২০২০ সালে ডব্লিউবিসিএস লিখিত পরীক্ষায় সফল হন। বি গ্রুপে তাঁর নাম উঠে আসে পাঁচ নম্বরে। তারপরে আইনের রক্ষকের পথ বেছে নেন নিশাদ।


নিশাদ আরও বলেন, ছোটো থেকেই তিনি দেখেছেন একটা সময় গ্রামের কি অবস্থা ছিল। মাঝেমধ্যেই বোমাবাজি হত, গুলি চলত। রাজনৈতিক সংঘর্ষের ঘটনাও প্রায়শই ঘটত। সেই সময় থেকে আইনের রক্ষক হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করার ইচ্ছে ছিল তাঁর। অবশেষে সকলের আশীর্বাদ এবং সহযোগিতায় তিনি ডেপুটি পুলিশসুপার পদমর্যাদার অফিসার হতে পেরেছেন। খুব শীঘ্রই ট্রেনিং নিতে যাবেন তিনি।


আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page