top of page

চিকিৎসাধীন মহিলাদের জন্য দুয়ারে সরকারের ফর্ম নিয়ে হাসপাতালে প্রশাসনিক কর্তারা

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মহিলারা দুয়ারে সরকারের সুবিধে নিতে পারছেন না। তাই এবারে সরকারি প্রকল্পের ফর্ম হাতে নিয়ে হাসপাতালে গেলেন খোদ মহকুমাশাসক। বিডিও, ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট এবং হাসপাতাল সুপারকে নিয়ে প্রসূতি মহিলাদের ফর্ম বিলি তাঁরা। প্রশাসনের এই উদ্যোগে খুশি চিকিৎসাধীন মহিলারা।


রাজ্য জুড়ে চলছে দুয়ারে সরকার শিবির। রাজ্যজুড়ে মহিলাদের যেন উৎসব শুরু হয়েছে। সকাল থেকেই লাইন দিতে দেখা যাচ্ছে সরকারি প্রকল্পে নাম তুলতে। তবে গর্ভবতী মহিলাদের ক্ষেত্রে খানিকটা সমস্যা হচ্ছে। ইতিমধ্যে শিবিরে সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়াতে দেখা গিয়েছে জেলা ও পুলিশ প্রশাসনকে। এবারে চিকিৎসাধীন মহিলাদের জন্য দুয়ারে সরকারের ফর্ম নিয়ে হাসপাতালে পৌঁছতে দেখা গেল প্রশাসনিক কর্তাদের। আজ চাঁচল সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন প্রসূতিদের ফর্ম বিলি করা হয়েছে। বাড়ি থেকে নথিপত্র আনানোর পর প্রশাসনিক কর্তারা ফর্ম ফিলআপ করে জমা দেওয়ার ব্যবস্থা করবেন।


হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সোমা দাস জানান, তিনি গর্ভবতী। আপাতত হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তাঁর মতো অনেকই রয়েছেন। চিকিৎসাধীন থাকায় তাঁরা কেউ লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্পের ফর্ম ফিল-আপ করতে পারেননি। আজ প্রশাসনের লোকজন তাঁদের সেই ফর্ম দিয়েছেন। পরে তাঁরাই ফর্ম ফিল-আপ করে তা জমা দেওয়ার ব্যবস্থা করবেন বলেও জানিয়েছেন তাঁরা। প্রশাসনের এই উদ্যোগে তাঁরা খুশি।



মহকুমাশাসক কল্লোল রায় জানান, হাসপাতালে কিছু মহিলা ভরতি রয়েছেন। চিকিৎসাধীন থাকায় তাঁরা লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্পে আবেদন করতে পারেননি। তাঁরা যাতে এই প্রকল্পের সুবিধে থেকে বঞ্চিত না হন, তার জন্য এখানেই তাঁদের ফর্ম ফিলআপ করানো হবে। আজ ফর্ম বিলি করা হয়েছে। ২-৩ দিনের মধ্যেই সেই ফর্ম জমা হবে।




আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page