top of page

৬ মাসে ভেঙে পড়ল রাস্তা, প্রতিবাদ করায় হেনস্তার অভিযোগ

নিম্নমানের রাস্তা তৈরির অভিযোগ করে তৃণমূল নেতার হাতে হেনস্তা গ্রামবাসী। তৃণমূলের দখলে থাকা পঞ্চায়েতে তৃণমূলের লোক কাজ করার জন্যই রাস্তার এই অবস্থা, দাবি কংগ্রেসের। দলের বদনাম করতেই মিথ্যে প্রচার বলে পালটা দাবি তৃণমূলের। ঘটনাকে কেন্দ্র করে তীব্র চাঞ্চল্য হরিশ্চন্দ্রপুর-১ ব্লকের মহেন্দ্রপুরে।


স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, মহেন্দ্রপুর গ্রামের ৭০টি মিটার রাস্তা মাস ছয়েক আগে পাকা করা হয়। রাস্তা তৈরির সময় এক ডালিও মাটি ফেলে রাস্তার কাজ করা হয়নি। যে রাস্তার বরাত ছিল সেই রাস্তার থেকে অত্যন্ত নিম্নমানের রাস্তা তৈরি হয়েছে। সেই কারণে গতকাল রাস্তা ভেঙে পড়ে যায়। ঘটনার প্রতিবাদ করেন স্থানীয় বাসিন্দারা। এরপরেই তৃণমূল কর্মী ওই ঠিকাদারের আত্মীয়রা ঘটনার প্রতিবাদ করেন। এমনকি অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে দেখে নেওয়ার হুমকিও দেন।


স্থানীয় বাসিন্দা উমিমুল হক বলেন, যখন রাস্তার কাজ হচ্ছিল, তখন যদি মাটি ফেলে কাজ করা হত তবে এমন হত না। কিন্তু সেটা হয়নি। নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে কাজ হয়েছে। ফলে এইভাবে রাস্তা ভেঙে গেল। এর পুরো দায় পঞ্চায়েতের। পঞ্চায়েত যাদের দিয়ে কাজ করিয়েছে তাদের কেন ধরছে না। প্রতিবাদ করতে গেলে রাজ্যের শাসকদলের নেতাদের রোষের মুখে পড়তে হচ্ছে।


কংগ্রেসের অঞ্চল সভাপতি আবদুস শুভান বলেন, তৃণমূলের নেতারাই এখন ঠিকাদার। আর তৃণমূলের নেতারা ঠিকাদার হলে কি রকম কাজ হবে, সেটা সবাই জানে। কাটমানি ছাড়া কোনও কাজ হয় না। এতটাই নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে কাজ হয়েছে, যে ছয় মাসের মধ্যে রাস্তা ভেঙে পড়ল। প্রতিবাদ করতে গেলে তৃণমূলের বাহিনী এলাকাবাসীকে হুমকি দিচ্ছে।



যুব তৃণমূল সহ-সভাপতি রুস্তম আলি বলেন, এই রাস্তা ছয় মাস নয়, দুই বছর আগে হয়েছে। কয়েকদিন ধরে প্রচন্ড বৃষ্টি হয়েছে। জলাশয় ভরাট হয়ে বৃষ্টির জল উঠে রাস্তার ভেতর ঢুকেছে। ফলে রাস্তা ভেঙে গেছে। কিন্তু রাস্তা নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে তৈরি হয়নি। এসব কংগ্রেসের চক্রান্ত। নিজেদের অস্তিত্ব হারিয়ে তৃণমূলকে বদনাম করতে এসব মিথ্যে প্রচার করা হচ্ছে।



হরিশ্চন্দ্রপুর ১ ব্লকের জয়েন্ট বিডিও বিপ্লবকুমার ঘোষ বলেন, এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে কোনো অভিযোগ জমা পড়েনি। তবে বিষয়টি দফতরের নজরে এসেছে। উপযুক্ত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।



আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page