top of page

মেলেনি টিকিট, বিধায়কের বিরুদ্ধে সরব জামাই

ত্রিস্তর পঞ্চায়েত নির্বাচনে জেলা পরিষদের টিকিট না পেয়ে প্রাক্তন মন্ত্রীর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তুলেছেন তাঁর জামাই। ঘটনাকে কেন্দ্র করে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে রাজনৈতিক মহলে। এনিয়ে কোনও মন্তব্য করতে রাজি হননি প্রাক্তন মন্ত্রী তথা বিধায়কও।


মানিকচকের বিধায়ক তথা রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী সাবিত্রী মিত্রের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছেন তাঁর জামাই সমদীপ সরকার৷ সমদীপবাবুর অভিযোগ, পারিবারিক ঝামেলার জেরে ষড়যন্ত্র করে জেলা পরিষদের প্রার্থীপদ থেকে তাঁর নাম বাদ দেওয়া হয়েছে। উল্লেখ্য, পঞ্চায়েত নির্বাচন ঘোষণা পর থেকেই মানিকচকের ২৮ নম্বর জেলা পরিষদের আসন নিয়ে নানা খবর উঠে আসছিল। কখনও ওই আসনে প্রার্থী হচ্ছেন সমদীপ, কখনও প্রার্থী ফাইনাল হয়ে গিয়েছে। তবে প্রার্থী তালিকা ঘোষণার পর দেখা যায়, ওই আসনে তৃণমূলের প্রার্থী করা হয়েছে মানিকচক পঞ্চায়েত সমিতির সভানেত্রী কবিতা মণ্ডলকে।



সমদীপ জানান,

২০১৩ সাল থেকেই মানিকচকের চারটি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় রাজনীতি করছি৷ পঞ্চায়েত নির্বাচনকে কেন্দ্র করে গত এক বছর ধরে তৃণমূলের সংগঠন তৈরি করেছি৷ অনেকদিন ধরেই ঠিক ছিল, ২৮ নম্বর জেলা পরিষদ আসনে আমি প্রার্থী হচ্ছি৷ কিন্তু প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত হওয়ার পর জানতে পারি, এই আসনে পঞ্চায়েত সমিতির সভানেত্রী কবিতা মণ্ডলকে প্রার্থী করা হয়েছে৷ এবারের নির্বাচনে প্রতিটি ব্লকে বিধায়ক ও দলের ব্লক সভাপতি প্রার্থীদের চূড়ান্ত করেছেন৷ সাবিত্রী মিত্রের সঙ্গে পারিবারিক কিছু বিবাদ থাকায় ষড়যন্ত্র করে আমার নাম বাদ দেওয়া হয়েছে। এই ঘটনার প্রভাব এলাকায় পড়েছে৷ অনেকে মনোনয়ন জমা দিতে চাননি৷ অনেকে আবার মনোনয়ন প্রত্যাহার করার কথা ভাবছেন৷

আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page