top of page

নির্বাচনের আগে দুই পুরসভায় অবজারভার নিয়োগ

গত বিধানসভা নির্বাচনে মালদা জেলায় তৃণমূলের চমকপ্রদ ফল হলেও দুই পুরসভা এলাকায় যথেষ্ট পিছিয়ে রাজ্যের শাসকদল। এই পরিস্থিতিতে মানুষের আস্থা ফিরে পেতে প্রশাসনিক কর্তাদের সামনে আনছে তৃণমূল। অন্তত জেলার রাজনীতিবিদদের ধারণা তেমনটাই।


ইংরেজবাজার পুরসভার অবজারভার তথা নোডাল অফিসার হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছে মহকুমাশাসক (সদর) সুরেশচন্দ্র রানো ও পুরাতন মালদা পুরসভার নোডাল অফিসার হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছে অতিরিক্ত জেলাশাসক (সাধারণ) বৈভব চৌধুরিকে। দুই পুর এলাকার পানীয় জল, রাস্তাঘাট, নিকাশি ব্যবস্থা, বিদ্যুৎ, আবর্জনা সাফাই, সহ বাংলার বাড়ি প্রকল্পের দায়িত্বও দেওয়া হয়েছে দুই প্রশাসনিক কর্তাকে।



উল্লেখ্য, ইংরেজবাজার পুরসভার প্রশাসকের পদে থাকাকালীন মানুষের মনে বিশেষ জায়গা করে নিয়েছিলেন মহকুমাশাসক (সদর)। মালদা শহরের বেহাল নিকাশি ব্যবস্থা, যানজট সহ একাধিক বিষয়ে তাঁর পদক্ষেপকে সাধুবাদ জানিয়েছিল শহরের মানুষ। পরবর্তীতে ইংরেজবাজার পুরসভার প্রশাসক নিয়োগ করা হয় সুমালা আগওয়ালাকে। অন্যদিকে, পুরাতন মালদা পুরসভার প্রশাসক নিয়োগ করা হয় বশিষ্ঠ ত্রিবেদীকে। দায়িত্ব নিয়েই তিনি পুরসভার দুর্নীতির কবর খুঁড়তে শুরু করেন। তাতে দলের একাংশ তাঁর ওপর বেশ ক্ষুব্ধ হন। এমনকি তাঁর কাজকর্ম নিয়ে দলের মধ্যেই প্রশ্ন দেখা দিয়েছিল।



জেলার রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, আসন্ন পুরসভা নির্বাচনে দুই পুর এলাকার মানুষের আস্থা অর্জন করতে ব্যর্থ শাসকদলের নেতারা। অন্যদিকে, ইংরেজবাজার পুরসভার দায়িত্ব নিয়ে চোখে আঙুল দিয়ে শহরের উন্নয়ন কীভাবে করতে হয় তা দেখিয়ে দিয়েছেন মহকুমাশাসক। এতে আরও সমস্যা বেড়েছে তৃণমূলের। তাই ভোটের আগে মানুষের মনে প্রভাব ফেলতে প্রশাসনিক কর্তাদের হাতিয়ার করতে চাইছে শাসকদল।




গতকাল জারি করা রাজ্যের পুর ও নগরোন্নয়ন দফতরের সচিবের স্বাক্ষরিত নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, এখন থেকে সরকার মনোনীত অবজারভার অথবা নোডাল অফিসার দুই পুরসভার যাবতীয় কাজ তত্ত্বাবধান করবেন। তার মধ্যে রয়েছে পানীয় জল, রাস্তাঘাট, বিদ্যুৎ, আবর্জনা সাফাই, নিকাশি ব্যবস্থা, পতঙ্গবাহিত রোগ মোকাবিলা সহ আরও অনেক কিছু। এমনকি বাংলার বাড়ি প্রকল্পের যাবতীয় দায়িত্বও তাঁদের কাঁধে দেওয়া হয়েছে।


আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

Comments


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page