top of page

শীতলকুচির ঘটনায় সিসিটিভি ফুটেজ প্রকাশ্যে আনার দাবি সায়ন্তনের

শীতলকুচির ঘটনার সিভিটিভি ফুটেজ প্রকাশ্যে আনার দাবি তুললেন বিজেপির রাজ্য সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু। পাশাপাশি এই ঘটনার ভিত্তিতে রাজ্যের শাসকদল যেভাবে কমিশনের ওপর অভিযোগ তুলছেন তা নিয়ে কঠোর সমালোচনাও করেন তিনি।



আজ ইংরেজবাজার কেন্দ্রের দলীয় প্রার্থী শ্রীরূপা মিত্র চৌধুরির সমর্থনে প্রচারে আসেন বিজেপির রাজ্য সম্পাদক। সকালে তিনি সদরঘাট এলাকায় চায়ে-পে-চর্চায় অংশ নেন। পরে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন, চতুর্থ দফার নির্বাচনের পর কমিশনের সমালোচনা শুরু করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। তাদের দাবি, কেন্দ্রীয় বাহিনী নাকি সেখানে খুন করেছে। কমিশনের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছে তৃণমূল নেতৃত্ব। আর আমাদের দলের নেতৃত্বদের নামে অনেক কথা বলা হচ্ছে। অথচ মাননীয়া ভুলে যাচ্ছেন, ২০১০ সালের কলকাতা পুরনিগমের নির্বাচনের কথা। ২০১০ সালে কলকাতা পুর-নির্বাচনে পাটুলিতে সিপিএমের পোলিং এজেন্ট অরবিন্দ ধর ওরফে বাপি ভোটের পর ত্রিপুরা স্টেট রাইফেলসের গুলিতে মারা যান৷ তখন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সংবাদমাধ্যমে বিবৃতি দিয়েছিলেন, বাপি কুখ্যাত দুষ্কৃতী৷ রিগিং করতে গিয়ে গুলিতে মারা গিয়েছে৷ অথচ এখন দিদিমণি পুরো উলটে গিয়েছেন। গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে প্রায় ১০০ জন মারা গিয়েছেন। তখন তিনি কারও বাড়িতে যাননি। অথচ এখন কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে মৃতদের বাড়িতে যাচ্ছেন। মৃতদের পরিবারের প্রতি তাঁদেরও সমবেদনা রয়েছে। কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এনিয়ে রাজনীতি করছেন।




আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page