top of page

বেতন হচ্ছে না পুরসভায়, কাজ এগোচ্ছে ঢিমে তালে

বেতন হয়নি ইংরেজবাজার পুরসভার কর্মীদের। বেতন না পাওয়ায় অসন্তোষ ছড়িয়েছে পুরসভার কর্মীদের মধ্যে। এই নিয়ে পুরসভার কাজে ঢিল দিতে শুরু করেছেন অনেক কর্মীরা বলেও অভিযোগ উঠেছে। কয়েকমাসের মধ্যেই পুরসভা নির্বাচন। নির্বাচনের আগে পুরকর্মীদের নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে বেতন না হলে নির্বাচনে প্রভাব পড়তে পারে বলে মনে করছে জেলা তৃণমূল নেতৃত্বের একাংশ।



পুরসভার এক কর্মীর অভিযোগ, প্রতি মাসের ১ থেকে ৩ তারিখের মধ্যে অ্যাকাউন্টে বেতনের টাকা ঢুকে যায়। কিন্তু ফেব্রুয়ারি মাসের ৬ তারিখ হয়ে গেল বেতন পাননি কেউ। সংসার চলে মাস-মাইনের টাকায়। সময়ের মধ্যে বেতনের টাকা না পেলে সংসার কিভাবে চলবে? পুরসভার চেয়ারম্যানের কাছে এব্যাপারে জানতে চাওয়া হয়েছিল, উনি বলেছেন দ্রুত বেতন হয়ে যাবে। তবে বেতন কবে হবে সেই দিনক্ষণ নির্দিষ্টভাবে জানাতে পারেননি চেয়ারম্যান।



নীহাররঞ্জন ঘোষ, ইংরেজবাজার পুরসভার চেয়ারম্যান

“পে-কমিশনের মাধ্যমে বেতন বৃদ্ধি হয়েছে। তাই পুর কর্মীদের বেতন দিতে একটু সময় লাগছে”

পুরসভার চেয়ারম্যান নীহাররঞ্জন ঘোষ বলেন, শুধু পুরসভার সমস্যা নয়। সব জায়গায় একই সমস্যা হয়েছে। তবে যেহেতু পে-কমিশনের মাধ্যমে বেতন বৃদ্ধি হয়েছে। তাই পুর কর্মীদের বেতন দিতে একটু সময় লাগছে। এখন কম্পিউটারের যুগ। আর সব কাজই হয় অনলাইনে। পুরসভার কতজন কর্মী রয়েছেন। কারা কোন স্কেলে বেতন পান, তা তদারকি করে দেখে অর্থ দপ্তর। এরপরই প্রত্যেক কর্মীদের নিজস্ব অ্যাকাউন্টে অনলাইনের মাধ্যমে বেতন ঢুকে যায়। তবে এনিয়ে অযথা ভাবার কিছু নেই। ঠিক সময়ের মধ্যে পুরকর্মীদের বেতন হয়ে যাবে। বরঞ্চ বলা যেতে পারে রাজ্য সরকার পুর-কর্মীদের বেতন বৃদ্ধি করেছে। তাই একটু দেরি হচ্ছে। কিন্তু খুব শীঘ্রই সকলের বেতন অনলাইনের মাধ্যমে নিজস্ব অ্যাকাউন্টে পেয়ে যাবেন। এনিয়ে অযথা আতঙ্কিত বা হতাশ হওয়ার কিছু নেই। (#MunicipalityElection)

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page