top of page

টিকিটের কালোবাজারি শহরে, গ্রেফতার ট্রাভেল এজেন্সির কর্ণধার

বেআইনিভাবে ট্রেনের টিকিট বিক্রির অভিযোগে মালদা শহরের নেতাজি মোড়ের একটি প্রতিষ্ঠিত দোকানে হানা দিল রেলের ভিজিলেন্স আধিকারিকেরা। অভিযানে সঙ্গে ছিলেন আরপিএফ ও ইংরেজবাজার থানার পুলিশ। বেআইনিভাবে ট্রেনের টিকিট বিক্রির একাধিক প্রমাণ পেয়ে ওই দোকানের মালিককে গ্রেফতার করে নিয়ে যায় আরপিএফ কর্মীরা।



বুধবার সকাল এগারোটা নাগাদ মালদা শহরে নেতাজি মোড় এলাকায় অভিযান চালায় রেলের ভিজিলেন্স দপ্তরের ও আরপিএফের উচ্চপদস্থ কর্তারা। ওই ট্রাভেল এজেন্সির ল্যাপটপ, কম্পিউটার, মোবাইলসহ যাবতীয় নথিপত্র খতিয়ে দেখেন তদন্তকারী অফিসারেরা। প্রচুর ত্রুটিপূর্ণ কাগজপত্র উদ্ধার হয়। নিয়মবহির্ভূতভাবে বিপুল পরিমাণে সংরক্ষিত আসনের টিকিট উদ্ধার করে তদন্তকারী অফিসারেরা।


আরপিএফ সূত্রে জানা গিয়েছে, দীর্ঘদিন ধরেই রেলের টিকিট কালোবাজারি এবং বেআইনিভাবে রেলের সংরক্ষিত টিকিট বিক্রির অভিযোগ উঠেছিল এই এজেন্সির বিরুদ্ধে। নির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতেই এজেন্সির বিরুদ্ধে সার্চ ওয়ারেন্ট জারি করা হয়। ওয়ারেন্ট ইশ্যু হওয়ার পরেই দোকানে অভিযান চালানো হয়েছে। দোকানে অভিযান চালিয়ে প্রচুর বেআইনি সংরক্ষিত টিকিট সহ অন্যান্য নথিপত্র পাওয়া গিয়েছে। জামিন অযোগ্য ধারায় মামলা রুজু করে দোকানের মালিককে গ্রেফতার করে আরপিএফ।


যদিও এই প্রসঙ্গে ওই ট্রাভেল এজেন্সির কর্ণধার মনমোহন সারদা জানান, পার্সোনাল আইডি ব্যবহার করে টিকিট বিক্রির অভিযোগ তার বিরুদ্ধে তোলা হয়েছে। সার্ভার না থাকলে অনেক সময় তাঁরা কাস্টমারের অনুরোধে পার্সোনাল আইডি ব্যবহার করে টিকিট করে দেন। তবে এটি বেআইনি কিনা তা তাঁর জানা নেই।

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page