top of page

পৌরসভা নির্বাচনের রোস্টার নিয়ে আদালতের দ্বারস্থ প্রাক্তন চেয়ারম্যান

চলতি বছর পৌরসভা নির্বাচন৷নির্দেশিকা অনুযায়ী এবার ইংরেজবাজার পৌরসভায় তৃতীয় রোস্টার অনুযায়ী নির্বাচন হতে চলেছে৷তৃতীয় রোস্টার অনুযায়ী পৌরসভার বাঘা বাঘা কাউন্সিলররা নিজেদের ওয়ার্ড থেকে প্রতিদ্বন্দিতা করতে পারবেন না। সেই তালিকায় রয়েছেন পৌরসভার বর্তমান চেয়ারম্যান নীহাররঞ্জন ঘোষ, প্রাক্তন চেয়ারম্যান নরেন্দ্রনাথ তিওয়ারি, কাউন্সিলর আশিস কুণ্ডু, প্রসেনজিৎ দাস, অঞ্জু তিওয়ারি সহ আরও কয়েকজন।



এই রোস্টারকে আইনবিরোধী বলে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন প্রাক্তন চেয়ারম্যান নরেন্দ্রনাথ তিওয়ারি। তিনি বলেন, ভুল প্রক্রিয়ায় এই রোস্টার তৈরি করা হয়েছে৷ সেই ভুলের প্রতিবাদে প্রথমে দলনেত্রী, পরে প্রশাসনকে অভিযোগ জানান তিনি। কোন ফল না মেলায় হাই কোর্টের শরণাপন্ন হয়েছেন। ২০১৫ সালে যেভাবে ভুল রোস্টারে নির্বাচন হয়েছিল। এবছরও সেই ভুলের পুনরাবৃত্তি হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, ২০১৫ সালে এই পৌরসভার ২৫টি ওয়ার্ড ভেঙে ২৯টি করা হয়েছিল৷আইন অনুযায়ী ওয়ার্ড ভাঙার ফলে প্রথম রোস্টার অনুযায়ী নির্বাচন হওয়ার কথা। কিন্তু তা হয়নি। সেবার দ্বিতীয় রোস্টারে নির্বাচন হয়েছিল। সেই ভুলের ভিত্তিতে এবার প্রাথমিকভাবে তৃতীয় রোস্টারে নির্বাচন ঘোষণা হয়েছে। এই ঘটনার পেছনে চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান সহ অনেক কাউন্সিলর দায়ী। এই ষড়যন্ত্রণে জেলা প্রশাসনের একাংশও দায়ী। এর প্রতিবাদে তথ্য জানার আইনে জেলাশাসকের কাছে এলাকার বহু মানুষ রোস্টার নির্ধারণে পদ্ধতি জানতে রেয়েছেন। কিন্তু তাঁদের সেই তথ্য দেওয়া হচ্ছে না। (#MunicipalityElection)



পৌরসভার ভাইস চেয়ারম্যান দুলাল সরকার বলছেন, খসড়া রোস্টার তালিকা প্রকাশিত হওয়ার পর এসব প্রশ্ন উঠছে৷ এবার যারা এনিয়ে মামলা করেছেন, ২০১৫ সালের নির্বাচনে তাঁরাই রোস্টারের সুবিধা ভোগ করেছিলেন৷সেই সময় তিনি ছাড়াও আরও অনেক কাউন্সিলর নিজেদের ওয়ার্ডে প্রতিদ্বন্দিতা করতে পারেননি।


আগামী সোমবার চূড়ান্ত রোস্টার প্রকাশিত হবে৷প্রাক্তন চেয়ারম্যানের অভিযোগ কি খসরা রোস্টারে পরিবর্তন আনতে পারবে সেই প্রশ্নের উত্তরের সন্ধানে শহরবাসী।

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page