top of page

বিধায়কের পা ধরে ভিটেমাটি বাঁচানোর আর্জি মহিলাদের

ভিটে মাটি বাঁচাতে স্থানীয় বিধায়কের পা ধরে আবেদন করে কান্নায় ভেঙে পড়লেন মহিলারা। কেন্দ্রীয় সরকার টাকা না দিলে জাতীয় সড়ক অবরোধ করে ফরাক্কা ব্যারেজ ঘেরাও করার হুঁশিয়ারি তৃণমূলি বিধায়কের। বিজেপি সাংসদ ভাঙন কবলিত এলাকায় গেলে স্থানীয় মানুষজন সাংসদকে গঙ্গায় ছুঁড়ে ফেলবে বলেও মন্তব্য করেন রতুয়ার বিধায়ক সমর মুখোপাধ্যায়।


উল্লেখ্য, রতুয়া ১ নম্বর ব্লকের মহানন্দটোলা, শ্রীকান্তটোলা, মণিরামটোলা সহ বিস্তীর্ণ এলাকার গত কয়েকদিন ধরে ভাঙন দেখা দিয়েছে। ভাঙনের কবলে পড়ে উধাও হয়ে গিয়েছে পুলিশ ক্যাম্প। ভাঙনের তীব্রতা দেখে আতঙ্কে শিউরে উঠেছেন ওই এলাকার মানুষ। আজ ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শনে যান স্থানীয় তৃণমূলি বিধায়ক সমর মুখোপাধ্যায়। বিধায়ককে সামনে পেয়ে ভিটেমাটি বাঁচানোর আবেদনে বিধায়কের পা ধরে কাঁদতে দেখা যায় স্থানীয় মহিলাদের।


সমর মুখোপাধ্যায় জানান, কেন্দ্রীয় সরকার গঙ্গা ভাঙন প্রতিরোধের টাকা না দিলে আমরা জাতীয় সড়ক অবরোধ করব। ফরাক্কা ব্যারেজ ঘেরাও করব। উত্তর মালদার সাংসদ খগেন মুর্মু ভোটের আগে বলেছিলেন, তাঁকে ভোট দিলে তিনি ভাঙন প্রতিরোধের কাজ করবেন। কিন্তু উনি কিছুই করেননি। এখন উনি এই এলাকায় এলে স্থানীয় মানুষ তাঁকে গঙ্গায় ছুঁড়ে ফেলবেন।



উত্তর মালদার বিজেপি সাংসদ খগেন মুর্মু বলেন,

বিষয়টি আমি একাধিকবার সংসদে তুলেছি। উত্তরে আমাকে জানানো হয়েছে, রাজ্য সরকার পরিকল্পনা করে স্কিম কেন্দ্রের কাছে পাঠাবে। কেন্দ্র এই বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার পাশাপাশি আর্থিক সাহায্য দেবে। এই বিষয়গুলি রাজ্য সরকারকে আমরা জানিয়েছি। কিন্তু এখনও পর্যন্ত রাজ্যের তরফে কোনও উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। স্থানীয় তৃণমূলি বিধায়ক বলছেন আমাকে জলে ফেলবে স্থানীয় বাসিন্দারা। গঙ্গার জলে যদি ফেলতে হয় সমর মুখার্জিকে ফেলতে হবে। তৃণমূলকে ফেলতে হবে, রাজ্য সরকারকে ফেলতে হবে। এই ভাঙন প্রতিরোধে রাজ্য সরকার কোনও কাজ করছে না। শুধুই রাজনীতি করছে। আর তার ফল ভোগ করছে সাধারণ মানুষ।

আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page