top of page

'সোনার' মূর্তি উদ্ধারে গিয়ে খালি হাতে ফিরল প্রশাসন

সোনালি রংয়ের দুর্গা মূর্তি উদ্ধারের পর থেকে এলাকায় যেন উৎসবের মরশুম ফিরে এসেছে। উদ্ধার হওয়া দুর্গা মূর্তি দেখতে ছুটে গিয়েছেন স্থানীয় বিধায়ক থেকে শুরু করে প্রাক্তন সভাধিপতি সকলেই। এদিকে, উদ্ধার হওয়া মূর্তি যাচাইয়ের জন্য এলাকা গেলেও খালি হাতেই ফিরে আসতে হয় প্রশাসনের আধিকারিকদের। গ্রামবাসীদের সাফ কথা, এলাকায় দুর্গা মন্দির তৈরি হবে। এই মূর্তি এখানেই থাকবে।


উল্লেখ্য, গতকাল দুপুরে মানিকচকের কালিন্দ্রী ঘোষপাড়া এলাকায় বাচ্চারা পুকুরে সরস্বতী প্রতিমা বিসর্জন করতে গিয়েছিল। সেই সময় বাচ্চাদের হাতে উঠে আসে একটি দুর্গার মূর্তি। তড়িঘড়ি ওই বাচ্চারা বিষয়টি স্থানীয় বাসিন্দাদের জানান। নিমেষে সেই খবর চাউর হয়ে যায় এলাকায়। মানুষজন উদ্ধার হওয়া মূর্তি দেখতে ও পুজো দিতে ভিড় করতে থাকেন। উদ্ধার হওয়া দুর্গা মূর্তি দেখতে ছুটে গিয়েছেন স্থানীয় বিধায়ক সাবিত্রী মিত্র, প্রাক্তন সভাধিপতি গৌরচন্দ্র মণ্ডল সহ অন্যান্যরাও। খবর পেয়ে আজ দুপুরে ওই এলাকা থেকে মূর্তি উদ্ধারে যান প্রশাসনিক কর্তারা। তখনও ওই মূর্তি নিয়ে পুজোয় ব্যস্ত এলাকাবাসী।


স্থানীয় বাসিন্দারা প্রশাসনিক কর্তাদের জানান,

তাঁরা ওই এলাকাতেই মন্দির তৈরি করে দেবীর পুজো করবেন। কোনোমতেই তাঁরা এই মূর্তি প্রশাসনের হাতে তুলে দেবেন না। প্রশাসনের তরফে দু-তিন দিনের মধ্যে সেই মূর্তি ফিরিয়ে দেওয়ার কথা বলা হলেও তাতেও রাজি হননি এলাকার লোকজন। শেষমেশ খালি হাতেই ফিরতে হয় প্রশাসনিক কর্তাদের।




আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page