top of page

দুষ্কৃতীদের হাতে আক্রান্ত কলেজ পড়ুয়া

এক পরিবারের ৪ সদস্যকে মারধর করার অভিযোগ উঠল আরেক পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে৷ মারধর করা হয়েছে পুলিশের কাছে অভিযোগ জানিয়ে আসার সময়৷ আহতদের মধ্যে দু’জন মালদা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন৷ বাকি দু’জন ভর্তি রয়েছেন রতুয়া গ্রামীণ হাসপাতালে৷ গতকাল রাতে ঘটনাটি ঘটেছে রতুয়া ১ ব্লকের কাহালা গ্রাম পঞ্চায়েতের হরগোবিন্দপুর গ্রামে৷



এই ঘটনায় আহত সিয়াদ শেখ জানান, গ্রামে তাঁদের পাশাপাশিই থাকে শিশা শেখ, ইশা শেখ, ইসলাম শেখ, ইশামুদ্দিন শেখ, ইদুল শেখরা৷ তারা এলাকায় কুখ্যাত দুষ্কৃতী হিসাবে পরিচিত৷ বছরে অন্তত একবার দুষ্কর্মের জন্য তাদের জেলযাত্রা হয়৷ তাদের বিরুদ্ধে খুনেরও অভিযোগ রয়েছে৷ দীর্ঘদিন ধরেই তারা বাড়ি থেকে তাঁদের উচ্ছেদ করার চেষ্টা করছিল৷ গতকাল বিকেলে খেলা নিয়ে বাচ্চাদের মধ্যে ঝামেলা হয়৷ তাদের বাড়ির বাচ্চারাও সেই খেলার মধ্যে ছিল৷ সেই ঝামেলার জেরে তারা তাঁদের বাড়িতে আসে৷ তাঁদের বাড়ি ছেড়ে অন্যত্র চলে যাওয়ার নির্দেশ দেয়৷ তা না হলে তারা তাঁদের খুন করবে বলে হুমকিও দেয়৷ সেই সময় প্রতিবাদ করে তাঁর চাচাতো ভাই শিকতার শেখ৷ প্রতিবাদ করায় শিশারা তাকে বেধড়ক মারধর করে৷ তাঁরা শিকতারকে নিয়ে স্থানীয় হাসপাতালে যান৷ চিকিৎসা করানোর পর রাত ৮টা নাগাদ তাঁরা রতুয়া থানায় গিয়ে গোটা ঘটনা লিখিতভাবে জানিয়ে শিশাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন৷ থানা থেকে বেরোতে তাঁদের খানিকটা রাত হয়ে যায় ৷ বাড়ি ফেরার পথে রাস্তায় তাঁদের আটকায় শিশারা৷ কেন তাঁরা থানায় অভিযোগ জানাতে গিয়েছিলেন, তা নিয়ে কৈফিয়ৎ চায় তারা৷ এনিয়ে তাঁদের মধ্যে বচসা শুরু হয়৷ তখনই শিশা, ইশা, ইসলাম, ইশামুদ্দিন ও ইদুল তাঁদের বেধড়ক মারধর করে৷ মারে গুরুতর আহত হয় শিকতার৷ তার অবস্থা আশঙ্কাজনক৷ মারধর করার পর তারা সেখান থেকে চলে গেলে তাঁরা ফের রতুয়া গ্রামীণ হাসপাতালে যান৷ সেখানকার চিকিৎসকরা শিকতার ও তাঁকে মালদা মেডিকেল কলেজে রেফার করে দেন৷ সাদিউল শেখ ও ফুরকি বিবি রতুয়া গ্রামীণ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন৷

রতুয়া থানার পুলিশ জানিয়েছে, গতকাল বিকেলের ঘটনায় অভিযোগ দায়ের হলেও রাতের ঘটনায় কোনও অভিযোগ এখনও দায়ের হয়নি৷ অভিযোগের ভিত্তিতে ইতিমধ্যেই পুলিশি তদন্ত শুরু হয়েছে৷ অভিযুক্তদের খোঁজে তল্লাশি চলছে।


আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

ভিডিয়োঃ কৃতাঙ্ক


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page