রাজনীতির মঞ্চে মুখোমুখি দুই প্রজন্ম, জমা পড়ল মনোনয়ন

রাজনীতির মঞ্চে মুখোমুখি দুই প্রজন্ম, জমা পড়ল মনোনয়ন

চৈত্রের ভরদুপুর৷ তাপ উপেক্ষা করেই জেলা প্রশাসনিক ভবনের দিকে হাঁটায় ব্যস্ত লাল-সবুজ৷ দল বেঁধে৷ প্রশাসনিক ভবনের অনেক আগেই অবশ্য মিছিলের গতি রূদ্ধ৷ নিরাপত্তার কঠোর চাউনি৷ মোট ৫ জন৷ তার বেশি কিছুতেই নয়৷ কমিশনের ফতেয়া মেনে কংগ্রেস ও সিপিএমের প্রার্থী-পারিষদরা ঢুকে পড়লেন ভিতরে৷ অবশ্যই গত বিধানসভা ভোটের ছবি আজ দেখা যায়নি৷ আজ সবটাই যেন আলাদা আলাদা।


দুই প্রতিদ্বন্দ্বী একেবারে মুখোমুখি, জেলা রাজনীতিতে দুই প্রজন্ম৷

দু'দিন হাতে রেখে আজ নিজেদের মনোনয়ন পেশ করলেন পিতা-পুত্র৷ দক্ষিণ ও উত্তর মালদা কেন্দ্রের কংগ্রেস প্রার্থী আবু হাসেম খান চৌধুরি ও ইশা খান চৌধুরি৷ প্রায় একই সঙ্গে মঞ্চে প্রবেশ উত্তর মালদা কেন্দ্রের সিপিএম প্রার্থী বিশ্বনাথ ঘোষেরও৷ প্রশাসনিক ভবনের চারতলায় দুই প্রতিদ্বন্দ্বী একেবারে মুখোমুখি৷ জেলা রাজনীতিতে দুই প্রজন্ম৷ রাজনৈতিক লড়াই দূরে সরিয়ে রেখে একে অন্যের হাত চেপে ধরলেন, কাঁধেও হাত পড়ল৷ যেন অব্যক্ত অনুভূতি, 'তোমার শত্রু, আমার শত্রু, আমরা বন্ধু'৷ আজ বিশ্বনাথবাবুও নিজের মনোনয়ন পেশ করেছেন৷


এদিকে কোতুয়ালি ভবনে সকালের ছবিটা ছিল অন্যদিনের থেকে কিছুটা আলাদা৷ সকাল থেকেই ভবনের নূর কক্ষ বন্ধ৷ জানা গেল, সাতসকালে তিনি উত্তর মালদায় প্রচারে৷ তাঁর অবর্তমানে গোটা ভবন চত্বরটাই প্রয়াত নেতার দখলে৷ কংগ্রেসের দুই প্রার্থী জয়ধ্বনির মধ্যেই হাঁটা দিলেন বরকত সাহেবের সমাধিতে৷ সেখানে দোয়া চেয়ে উঠলেন গাড়িতে৷ কনভয়ের অভিমুখ মনস্কামনা মন্দিরের দিকে৷ ঠিক যেমনটা দেখা যেত বরকত সাহেবের জীবিতকালে৷ পুজো দিয়ে ফের গাড়িতে ওঠা৷ টাউন হলের সামনে দুই প্রার্থী মিশে গেলেন কর্মী-সমর্থকদের ভিড়ে৷


আবু হাসেম নিজের তো বটেই, ছেলের জয় নিয়েও দ্বিধায় নেই৷ খোলাখুলি জানিয়ে দিয়েছেন সেকথা৷ তাঁর কথায়, যে সামনে আসবে, তার সঙ্গেই লড়াই করব৷ কিন্তু প্রতিদ্বন্দ্বী যে খোদ জেলা তৃণমূল সভাপতি! "তাতে কী হয়েছে? ৫ বছর আগেও তো আমার বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছিল!" বোঝা গেল, নির্বাচনি নথি পেশ করতে এসে বেশ খানিকটা বয়স কমিয়েছেন, তার সঙ্গে আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে ফেলেছেন ডালুবাবু৷ আর ইশার কথায়, "২০১৬ সালে সুজাপুর বিধানসভা কেন্দ্রে প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন আমার জ্যেঠু৷ জিতেছিল কিন্তু কংগ্রেসই৷" বাবার আত্মবিশ্বাস খানিকটা চুঁইয়ে তখন ছেলের মনে


আর বিশ্বনাথবাবু! তিনি আজ লোকসভা নির্বাচনে জয় পেরিয়ে পা রেখেছেন পরের বিধানসভা নির্বাচনে৷ দাবি করলেন, প্রচারে যে সাড়া পেয়েছেন তাতে তিনি এখন নাকি দ্বিতীয় স্থানে৷ নিজের দলের লোকজন নয়, এই বার্তা আসছে বিরোধীদের কাছ থেকেই৷ তাহলে আর যে কয়েকটা দিন আছে, তাতে তিনি প্রথমে চলে আসবেন৷ উত্তর মালদা ঘুরে ঘুরে নির্বাচকদের কাছ থেকে সেই বার্তাটা পেয়ে গেছেন৷ তাই তিনি আজ ঘোষণা করে দিচ্ছেন, ২১-এর নির্বাচনে রাজ্যে ক্ষমতায় আসছে বামফ্রন্ট৷(#RanangDehi)



হেডলাইন

প্রতিবেদন

মহানন্দার উজান স্রোতে ভবানীপুরে অশনির ঘণ্টা বাজছে

ফি বছর বর্ষায় বেড়ে যায় মহানন্দার জলস্তর। স্রোতের আওয়াজ ঘুমন্ত গ্রামবাসীদের কানের পর্দায় যেন ধাক্কা দেয়৷ এবারও বেড়েছে মহানন্দার জল৷ খানিকটা..

বিজ্ঞাপন

ফলো করুন
  • Facebook
  • Instagram
  • Twitter
  • YouTube
  • Pinterest

সব খবর ইনবক্সে!

প্রতিদিন খবরের আপডেট পেতে সাবস্ক্রাইব করুন

Aamader Malda Worldwide, the only media of your hometown and its thoughts. Here you can share and express your views and thoughts and you'll get here the essence of MALDAIYA CULT...

You can reach us via email or phone.  P +91 3512-260260  E response@aamadermalda.in

  • Facebook
  • Twitter
  • YouTube
  • Pinterest
  • Instagram
  • RSS

Copyright © 2020 Aamader Malda. All Rights Reserved.