top of page

ভোটের ১৪দিন আগে তৃণমূলে যোগ দিলেন বন্দনা

শুভাশিস সেনঃ নির্বাচনের ১৪দিন আগে মালদা জেলা কংগ্রেসে বড়োসড়ো ভাঙ্গন। এদিন কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করলেন জেলা পরিষদের ১১ নম্বর আসনের প্রার্থী বন্দনা থোকদার ঘোষ। মঙ্গলবার পুরাতন মালদার এক বেসরকারি হোটেলে তাঁর হাতে তৃণমূল কংগ্রেসের দলীয় পতাকা তুলে দেন তৃণমূল কংগ্রেসের মালদা জেলার পর্যবেক্ষক শুভেন্দু অধিকারী। শুভেন্দুবাবু বলেন আমরা তাঁকে স্বাগত জানাচ্ছি এবং ভবিষ্যতে তাঁর মাধ্যমে আমরা তাঁর নির্বাচনী এলাকার বিভিন্ন উন্নয়নের কাজ করতে সক্ষম হব। দলে যোগদান করার পরে বন্দনা দেবী জানান তিনি এলাকার জনপ্রতিনিধি হয়েও কোনও উন্নয়নের কাজ করতে পারছিলেন না, তাই তিনি তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করেছেন, যার মাধ্যমে তিনি এলাকার উন্নয়ন করতে সক্ষম হবেন বলে আশা প্রকাশ করেন। কিন্তু হঠাৎ করে নির্বাচনের মুখে তিনি কেন এই দল পরিবর্তন করলেন তা নিয়ে তিনি সঠিক জবাব দিতে পারেননি।



রাজ্যের মানুষ উন্নয়ন চোখে দেখছেন

এই রাজ্যে তৃণমূল কংগ্রেস সরকারের আমলে জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকল মানুষ সুখে আছেন। তাঁরা নিরাপদে রাতে ঘুমোতে পারছেন। রাজ্যের মানুষ উন্নয়ন চোখে দেখছেন। রাজ্যের প্রতিটি বাড়িতে কিছু না কিছু উন্নয়ন পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। মালদা জেলায় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়, তপশিলি জাতিভুক্ত কৃষক সম্প্রদায়, রাজবংশী সম্প্রদায়, মতুয়া সম্প্রদায় ও আদিবাসী সম্প্রদায় বাস করেন। তারা চান সরকারি পরিষেবা ও সরকার তাদের মৌলিক অধিকার সুরক্ষিত করুক। মালদা জেলার বন্যায় মুখ্যমন্ত্রীর নিজে থেকে ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়ি ঘর মেরামতের জন্য ও বন্যায় ফসলের ক্ষতি হয়েছিল তার ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা নিজে থেকে করেছেন। এছাড়াও উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন পর্ষদ থেকে ২০০ কোটি টাকা মালদা জেলা পরিষদের মাধ্যমে বিভিন্ন উন্নয়নের কাজে ব্যয় করা হয়েছে। ফলে মানুষ বুঝতে পারছেন যে তৃণমূল ছাড়া রাজ্যে উন্নয়ন সম্ভব হবে না। বাকীদের মাধ্যমে উন্নয়ন মাঝপথেই আটকে যাবে।


পঞ্চায়েত ভোটের হার ধরে রাখতে পারলে জেলার দুটি আসনেই তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থীরা জয়ী হবেন

আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে মৌসম নুর কংগ্রেস থেকে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করেছেন ও লোকসভায় তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী হয়েছেন এবং তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতিদ্বন্দ্বী বিজেপি প্রার্থী সিপিএম ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেছেন, এই প্রসঙ্গে শুভেন্দু অধিকারী জানান, বর্তমানে তৃণমূল কংগ্রেসের ভোট অনেক বেড়েছে। ২০১৪ সালে তৃণমূল কংগ্রেস ২০% ভোট পেয়েছিল। ২০১৬ বিধানসভা নির্বাচনে মালদা জেলায় তৃণমূল কংগ্রেস কোনও আসন না পেলেও তাদের ভোট বেড়ে হয়েছিল ৩০ শতাংশ। আর পঞ্চায়েত ভোটে তা ৪৫.৯৭ শতাংশ। মূলত: ভোটের এই বৃদ্ধির হার এসেছিল কংগ্রেস এবং সিপিএম-এর ভোট ব্যাংক থেকে। আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির থেকেও তারা বেশ কিছু ভোট নিজেদের আয়ত্তে আনতে সক্ষম হবেন এবং সেক্ষেত্রে বিগত পঞ্চায়েত নির্বাচনে ভোটের হার ধরে রাখতে পারলে জেলার দুটি আসনেই তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থীরা জয়ী হবেন বলে আশা প্রকাশ করেন শুভেন্দুবাবু।



বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page