top of page

গণপিটুনি থেকে মহিলাকে উদ্ধার পুলিশের

ছোট একটি বাচ্চাকে নিয়ে গ্রামের রাস্তায় ঘুরে বেড়াচ্ছিলেন এক মহিলা৷ উদ্দেশ্যহীনভাবে তাঁকে বাচ্চা সহ ঘুরে বেড়াতে দেখে সন্দেহ হয় গ্রামবাসীদের৷ ওই মহিলাকে ছেলেধরা সন্দেহ করে সবাই৷ স্থানীয়রা জেরা করতে শুরু করে মহিলাকে৷ কিন্তু অত মানুষ দেখে ঘাবড়ে যান ওই মহিলা৷ কোনও প্রশ্নেরই সঠিক উত্তর দিতে পারেননি তিনি৷ এরপরেই সন্দেহবশত ওই মহিলাকে মারধর শুরু করে উত্তেজিত জনতা৷ পরিস্থিতি বেগতিক বুঝে সঙ্গে সঙ্গে ফোন করে গোটা বিষয়টি স্থানীয় থানায় জানান গ্রামের কয়েকজন৷ তৎক্ষণাৎ ঘটনাস্থলে ছুটে আসে পুলিশ৷ উত্তেজিত জনতার হাত থেকে উদ্ধার করে ওই মহিলাকে নিয়ে যাওয়া হয় থানায়৷ তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করে তাঁর ঠিকানার খোঁজ পায় পুলিশ৷ আজ সন্তান সহ ওই মহিলাকে তুলে দেওয়া হয়েছে তাঁর পরিবারের হাতে৷ গতকাল এই ঘটনা ঘটেছে পুরাতন মালদার ভাবুক এলাকায়৷



মহিলার নাম রেজিনা খাতুন৷ তাঁর বাড়ি মুর্শিদাবাদ জেলার রানিতলায়৷ খানিকটা মানসিক ভারসাম্যহীন৷ স্বামীর সঙ্গে ঝগড়া করে গত সোমবার ছেলেকে নিয়ে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান তিনি৷ ট্রেনে উঠে চলে আসেন মালদা৷ স্টেশনে নামার পর থেকেই উদ্দেশ্যহীনভাবে পথ চলতে শুরু করেন তিনি৷ শেষ পর্যন্ত ভাবুকে তাঁর যাত্রা শেষ হয়৷ গতকাল মালদা থানার পুলিশকে তিনি জানান, তাঁর নাম রেজিনা৷ বাড়ি মুর্শিদাবাদ জেলার রানিতলায়৷ এরপরেই মালদা থানার পুলিশ রানিতলা থানার ওসির সঙ্গে যোগাযোগ করে সব ঘটনা জানায়৷ ওই থানার পুলিশ মহিলার বাড়িতে সিভিক ভলান্টিয়ার পাঠিয়ে তাঁর স্বামী মুরসেলিম শেখকে খবর দেন৷ আজ মুরসেলিম তাঁর বাবা ও শ্বশুর সহ মালদা থানায় পৌঁছোন৷ সন্তান সহ রেজিনাকে মুরসেলিমের হাতে তুলে দেয় পুলিশ৷ স্ত্রী ও সন্তানকে ফিরে পেয়ে মালদা থানার পুলিশকে ধন্যবাদ দিতে ভোলেননি মুরসেলিম৷


[ আরও খবরঃ হিন্দি কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় করার দাবি মালদায় ]



আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

Commentaires


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page