top of page

ইংরেজবাজার পুরসভায় অনাস্থা, দলীয় চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে তৃণমূলী কাউন্সিলররা

ইংরেজবাজার পুরসভার চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অনাস্থায় পুরসভার ১৫ জন কাউন্সিলর। কয়েকদিনের মধ্যেই আরও কয়েকজন অনাস্থায় যোগ দেবেন বলে দাবি করেছেন অনাস্থারত কাউন্সিলররা। বুধবার বিকেলে জেলাশাসক, সদর মহকুমাশাসক এবং পুরসভার চেয়ারম্যানের কাছে অনাস্থার প্রস্তাব দেওয়া হয়। পুরসভায় অনাস্থার ঘটনায় প্রাক্তন পুরসভার চেয়ারম্যান কৃষ্ণেন্দুনারায়ণ চৌধুরিকেই মাস্টারমাইন্ড হিসেবে এগিয়ে রাখছেন পুরকর্মীদের একাংশ। এপ্রসঙ্গে ইংরেজবাজার পুরসভার চেয়ারম্যান নীহাররঞ্জন ঘোষ বলেন, তিনি কলকাতায় আছেন, এখনও এবিষয়ে কিছু জানেন না। মালদায় ফিরে সমস্ত বিষয় জেনেই তিনি বিষয়টি জানাতে পারবেন।



অনাস্থা প্রসঙ্গে ইংরেজবাজার পুরসভার ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আশিস কুণ্ডু জানান, শহরের জঞ্জাল সমস্যায় মানুষ আর রাস্তায় হাটতে পারছে না। পুরসভার অকর্মণ্যতার জন্য গত লোকসভা নির্বাচনে ইংরেজবাজারের জনগণ তাঁদের ভোটে এটাই প্রকাশ করেছেন। পুরসভার বেশিরভাগ কাউন্সিলর এই অনাস্থায় মতদান করেছেন। যাঁরা বাইরে আছেন তাঁরা হয়তো সই করতে পারেন নি। তবে তাঁরাও এই অনাস্থায় সাথে আছেন। পুরসভায় বোর্ড অফ কাউন্সিলর এবং চেয়ারম্যান ইন কাউন্সিলের মিটিং ডাকা হয় না। ২ কোটি ৫৬ লক্ষ টাকার হাইমাস্ট টাওয়ার ই-টেন্ডার ছাড়াই তৈরি হয়ে যায়। পুরসভার চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগে তাঁরা চেয়ারম্যান নীহাররঞ্জন ঘোষের বিরুদ্ধে একজোট হয়ে জেলা নেতৃত্বকে জানিয়ে এই অনাস্থা প্রস্তাব আজ নিয়ে এসেছেন।


অনাস্থা প্রস্তাবের পক্ষে পুরসভার ১২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রসেনজিত দাস বলেন, বর্তমান চেয়ারম্যান গোটা শহরটাকে ভাগাড়ে পরিণত করেছেন। আমার এলাকায় গত দুবছর কোনোও কাজ হয়নি। গত লোকসভা নির্বাচনে প্রায় ৬২ হাজার ভোটে ইংরেজবাজারে তৃণমূল হেরেছিল এই একমাত্র পুরসভার ব্যর্থতায়।


প্রতিদিন মালদার টাটকা নিউজ হোয়াটস্ অ্যাপে পেতে ক্লিক করুন

Comentários


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page