ধর্মসংকটে অনেকেই, এখন খগেনের প্রত্যাবর্তনের অপেক্ষা

ধর্মসংকটে অনেকেই, এখন খগেনের প্রত্যাবর্তনের অপেক্ষা

দল ছেড়েছেন বাম নেতা৷ লাল মাটি এখন যেন খানিকটা গেরুয়া৷ ৩ বারের বিধায়ক সিপিএম ছেড়ে বিজেপিতে৷ কী ভাবছে বামনগোলা-হবিবপুরের আদিবাসী সমাজ? গাজোলেরই বা অবস্থান কী? আজ সকাল থেকে সন্ধে পর্যন্ত এই সব প্রশ্নের উত্তরই খুঁজে বেড়াল মালদার রাজনৈতিক মহল৷



প্রত্যাবর্তন শব্দটা কি ৩ বারের বিধায়ক, পোড় খাওয়া সিপিএম নেতার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য!

এপ্রসঙ্গে বামনগোলার এক জাঁদরেল সিপিএম নেতা দলত্যাগী বিধায়ককে সরাসরি বেইমান আখ্যা দেন৷ তবে নিজের নাম প্রকাশ্যে আনতে চান না তিনি৷ সাংগঠনিক পার্টির সিদ্ধান্তই তাঁর শেষ কথা৷ তাই নিজের বক্তব্য প্রকাশ্যে ঘোষণা করতেও যেন তাঁর ভয়৷ যা নিয়ে প্রশ্ন তুলে দল ছেড়েছেন খগেন মুর্মু (#KhagenMurmu)৷ ওই নেতার বক্তব্যে একটি বিষয় পরিষ্কার, তিনি কিংবা তাঁর অনুগামীরা এখনই খগেনবাবুর সঙ্গ ধরতে রাজি নয়৷ যদিও তাঁর মতো এলাকার সব সিপিএম নেতা এক নয়৷ অন্তত তিনজন নেতা এই মুহূর্তে দ্বিধায়৷ ধর্মসংকটে পড়েছেন তাঁরা৷ একদিকে দলের নীতি আর আদর্শের প্রশ্ন, অন্যদিকে রাজনৈতিক গুরুর সিদ্ধান্ত৷ যে গুরুর হাত ধরে তাঁরা রাজনীতিতে প্রবেশ করেছেন, সেই গুরুর হাত ধরে তাঁরা বিজেপিতে যাবেন কিনা ভাবছেন এখনও৷ এখন শুধু অপেক্ষা খগেনবাবুর প্রত্যাবর্তনের৷


প্রত্যাবর্তন শব্দটা কি ৩ বারের বিধায়ক, পোড় খাওয়া সিপিএম নেতার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য! রাজনৈতিক মহল বলছে, সেটাই শেষ কথা৷ যে দলের ছাত্র আন্দোলনে শামিল হয়ে রাজনীতির আঙিনায় পা রেখেছিলেন খগেনবাবু, সেই দল যে এখন পেরেস্ত্রৈকার হাওয়ায় উড়ে যাওয়ার মুখে, তার লিখন পড়তে বিন্দুমাত্র অসুবিধে হয়নি তাঁর৷ গত পঞ্চায়েত নির্বাচনের ফলই তাঁকে সেই বার্তা দিয়ে দিয়েছে৷ ফলে উভয় সংকটে পড়েছিলেন তিনি৷ একদিকে কয়েক দশকের পুরোনো দলের সঙ্গে গাঁটছড়া, অন্যদিকে নিজের রাজনৈতিক অস্তিত্ব রক্ষার সংগ্রাম৷ অনেক অংক কষেই তিনি যোগ দিয়েছেন বিজেপিতে৷ যদি গেরুয়া শিবির তাঁকে উত্তর মালদা কেন্দ্রে প্রার্থী করে, তবে দলের জেলাস্তর যতই তাঁর বিরোধিতা করুক না কেন, তাঁর হয়েই ময়দানে নামতে বাধ্য হবে৷ আর যারা অবাধ্য, নিজের হাস্যমুখ দিয়ে তাদের বশ করানোর অস্ত্রটা তো তাঁর অনেক পুরোনো৷ সেটাকেই আরও একবার শান দিয়ে নেবেন৷ আর একবার লোকসভা ভোটে জিতে গেলে পরে রাস্তাটা তো আরও উন্মুক্ত হয়ে যাবে৷ তিনি বিলক্ষণ জানতেন, কংগ্রেসের টিকিট তিনি পাবেন না৷ তৃণমূল আগেই সেখানে মৌসম নূরের নাম ঘোষণা করে দিয়েছে৷ এই অবস্থায় বিজেপির ডাক তাঁর কাছে পড়ে পাওয়া চোদ্দ, থুড়ি ষোলো আনা৷


ভোটবাজারে কী হবে, তা জানতে আরও কয়েকদিন অপেক্ষা করতে হবে৷ খগেনবাবুও এই মুহূর্তে জেলার বাইরে৷ তিনি ফিরলে বিজেপির অংকটা আরও পরিষ্কার হবে৷ তাই এই ক'দিন শুধু আশা, প্রত্যাশার দিনযাপন৷


#RanangDehi #MaldahaUttar

হেডলাইন

প্রতিবেদন

মহানন্দার উজান স্রোতে ভবানীপুরে অশনির ঘণ্টা বাজছে

ফি বছর বর্ষায় বেড়ে যায় মহানন্দার জলস্তর। স্রোতের আওয়াজ ঘুমন্ত গ্রামবাসীদের কানের পর্দায় যেন ধাক্কা দেয়৷ এবারও বেড়েছে মহানন্দার জল৷ খানিকটা..

বিজ্ঞাপন

ফলো করুন
  • Facebook
  • Instagram
  • Twitter
  • YouTube
  • Pinterest

সব খবর ইনবক্সে!

প্রতিদিন খবরের আপডেট পেতে সাবস্ক্রাইব করুন

Aamader Malda Worldwide, the only media of your hometown and its thoughts. Here you can share and express your views and thoughts and you'll get here the essence of MALDAIYA CULT...

You can reach us via email or phone.  P +91 3512-260260  E response@aamadermalda.in

  • Facebook
  • Twitter
  • YouTube
  • Pinterest
  • Instagram
  • RSS

Copyright © 2020 Aamader Malda. All Rights Reserved.