top of page

লাইব্রেরির হাল ফেরাতে লাইব্রেরিয়ানদের সাথে বৈঠক মন্ত্রীর

রাজ্যের সমস্ত লাইব্রেরিগুলির পরিকাঠামোর উন্নয়ন, প্রতিবন্ধী দৃষ্টিহীন পড়ুয়াদের জন্য দশম থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চালু করার উদ্যোগ নেওয়া হবে রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে। সোমবার মালদায় প্রশাসনিক বৈঠকের পর একথা জানিয়েছেন রাজ্যের জনসংখ্যা প্রসার এবং গ্রন্থাগার মন্ত্রী সিদ্দিকুল্লা চৌধুরি।


উল্লেখ্য, করোনা আবহে দীর্ঘ সময় ধরে বন্ধ ছিল রাজ্যের গ্রন্থাগারগুলি। সেই সময় থেকে গ্রন্থাগারগুলির পরিকাঠামো নিয়ে বিশেষ কোনও উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। অবশেষে গ্রন্থাগার পুনরায় চালু হওয়ায় রাজ্যের সমস্ত গ্রন্থাগারের পরিকাঠামো নিয়ে ভাবনাচিন্তা শুরু করেছে রাজ্য সরকার। আজ জেলার সমস্ত লাইব্রেরিয়ান ও প্রশাসনিক কর্তাদের নিয়ে বৈঠক করে মন্ত্রী সিদ্দিকুল্লা চৌধুরি।


জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, মালদা জেলায় জনশিক্ষা প্রসার দফতরের অন্তর্গত পাঁচটি দৃষ্টিহীন এবং প্রতিবন্ধীদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। জেলায় ১০৪ টি ছোটো-বড়ো গ্রন্থাগার রয়েছে। প্রতিবন্ধীদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত পঠন পাঠনের ব্যবস্থা রয়েছে। আগামীতে সেই প্রতিষ্ঠানগুলিতে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত পঠনপাঠনের ব্যবস্থা নিয়ে এদিনের বৈঠকে আলোচনা করা হয়।



সিদ্দিকুল্লা চৌধুরি বলেন, করোনা সময় কাল থেকে গ্রন্থাগারগুলি প্রায় বন্ধ অবস্থায় ছিল। তাই আমরা অনেক কিছু করতে পারিনি। তবে এখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়েছে গ্রন্থাগারগুলির পরিকাঠামোর দিকগুলি এখন দেখা হবে। পাশাপাশি পাঠকদের আগ্রহ বাড়াতে বিভিন্ন ধরনের বই সংগ্রহ, শূন্যপদ নিয়োগ নিয়ে ভাবনা চিন্তা চলছে।




আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

Commenti


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page