top of page

ট্রেনেই প্রসব, ফোন পেয়ে ছুটে এল মেরি সহেলি টিম

প্রসববেদনায় কাতরাচ্ছেন গর্ভবতী মহিলা, পাশে দাঁড়াল মেরি সহেলি। ট্রেনের কোচের মধ্যে অস্থায়ী প্রসব ঘর তৈরি করা হয়। সেখানেই পুত্রসন্তানের জন্ম দিলেন ওই মহিলা। সন্তানের জন্ম দিয়েই ‘মেরি সহেলি’ প্রকল্পের জন্য রেল কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানান তিনি। বর্তমানে তিনি মালদা মেডিকেল কলেজে ভরতি রয়েছেন।


জানা গিয়েছে, অসমের ডালগাঁও থানার অন্তর্গত বড়াবাড়ি এলাকার বাসিন্দা নাসিরুদ্দিন আলি ও তাঁর গর্ভবতী স্ত্রী জামিলা খাতুন 02510 ডাউন গুয়াহাটি-বেঙ্গালুরু স্পেশাল ট্রেনে করে অসম থেকে ব্যাঙ্গালোর যাচ্ছিলেন। ট্রেনটি মালদা টাউন স্টেশন ঢোকার মুহূর্তে জামিলা খাতুনের অস্বাভাবিক প্রসববেদনা শুরু হয়। তাঁরা রেলের হেল্পলাইন ১৩৯ নম্বরে ফোন করে বিষয়টি জানান। এরপরেই আরপিএফের ‘মেরি সহেলি’ টিম রেলের ডাক্তার ও নার্সদের সাথে নিয়ে মালদা টাউন স্টেশনের এক নম্বর প্লাটফর্মে ট্রেনের জন্য অপেক্ষা করতে থাকে। জামিলা খাতুনের শারীরিক অবস্থা দেখে ট্রেনের কামরায় অস্থায়ী প্রসব ঘর তৈরি করা হয়। সেখানেই পুত্রসন্তানের জন্ম দেন তিনি।



মালদা টাউন স্টেশন আরপিএফ ইনস্পেকটর ভিবি শর্মা জানান, কোচের ভেতরে পুত্রসন্তানের জন্ম দেন জামিলা খাতুন। সন্তান জন্ম দেওয়ার পর তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি থাকায় চিকিৎসকদের পরামর্শ অনুযায়ী মা ও ছেলেকে মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে। বর্তমানে তাঁরা দু’জনেই সুস্থ রয়েছেন।





আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

コメント


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page