top of page

বাড়ি থেকে টাকা আনতে না পারায় অন্তঃসত্ত্বা বধূ ‘খুন’

পণের দাবিতে অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূকে খুনের অভিযোগ উঠল স্বামী সহ শ্বশুরবাড়ির ছয় সদস্যের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে রতুয়া ২ ব্লকের পরাণপুরের বিষণপুর গ্রামে। মৃতদেহ ময়নাতদন্তে পাঠিয়ে স্বামী ও শাশুড়িকে আটক করেছে পুলিশ।



মৃত বধূর নাম আসমিরা খাতুন (২৩)। আট মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন বধূ। বাড়ি পরাণপুরের চাঁদপুর গ্রামে৷ জানা গিয়েছে, চার বছর আগে আসমিরার বিয়ে হয় পেশায় শ্রমিক কিষানপুরের শেখ হাইউলের সঙ্গে। বিয়ের সময় দাবি অনুযায়ী পণের টাকা দিতে না পারায় কিছুদিন বাদে স্ত্রীকে বাপের বাড়িতে পাঠিয়ে দেয় হাইউল। ১০ মাস পরে টাকা পেয়ে স্ত্রীকে বাড়িতে নিয়ে যান হাইউল। সম্প্রতি বাবার বাড়ি থেকে ৪০ হাজার টাকা আনার জন্য আসমিরার উপরে ফের নির্যাতন শুরু করে পরিবারের লোকজন। আসমিরা বাবার বাড়িতেও যান৷ কিন্তু গতকাল বাড়িতে কেউ না থাকায় তিনি শ্বশুরবাড়ি ফিরে গিয়ে বাড়ির লোকজনকে সেকথা জানান। অভিযোগ, এরপরেই পরিবারের লোকজন তাঁকে শ্বাসরোধ করে খুন করে৷ খুনের পর পরিবারের লোকজন গ্রাম ছেড়ে পালানোর চেষ্টা করে৷ সন্দেহ হওয়ায় গ্রামবাসীরা দু’জনকে একটি ক্লাবে আটক করে। পরে তাদের বাড়িতে গিয়ে দেখে, ঘরের ভিতর পড়ে রয়েছে আসমিরার দেহ৷ মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিকেল কলেজে পাঠায় পুলিশ৷




এই ঘটনায় পুখুরিয়া থানায় হাইউল সহ ছয়জনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগের ভিত্তিতে শেখ হাইউল ও সাহানাজ বিবিকে আটক করেছে পুলিশ।


আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page