top of page

মাধ্যমিকে দ্বিতীয় মালদার কৌশিকী, চতুর্থ অভিষেক

মাধ্যমিকে রাজ্যে দ্বিতীয় মালদার কৌশিকী সরকার। চতুর্থ স্থান পেয়েছে রামকৃষ্ণ মিশনের অভিষেক গুপ্ত। মাধ্যমিকে ভালো ফলের আশা থাকলেও, এতটা ভালো ফল হবে আশা করেনি কৌশিকী ও অভিষেক।

গাজোলের বিধান পল্লির বাসিন্দা কৌশিকী সরকার। বাবা মৃণালকান্তি সরকার আলাল হাইস্কুলের ভূগোলের শিক্ষক। মা চন্দ্রিকা লাহা দক্ষিণ দিনাজপুরের মেহেন্দিপাড়ায় একটি প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষিকা। এবছর রাজ্যে দ্বিতীয় স্থান পেয়েছে কৌশিকী। তার প্রাপ্ত নম্বর ৬৯২। অঙ্ক, ভৌতবিজ্ঞান ও জীবন বিজ্ঞানের প্রতিটিতে ১০০, বাংলা ও ভূগোলে ৯৯, ইংরেজিতে ৯৮ এবং ইতিহাসে তার প্রাপ্ত নম্বর ৯৬।


কৌশিকী জানায়, ভালো ফল হবে সেই আশা ছিল। তবে রাজ্যে দ্বিতীয় হয়ে যাব, তা ভাবতে পারিনি। প্রিয় বিষয় অঙ্ক, তবে পরীক্ষার জন্য জীবন বিজ্ঞানে বেশি সময় দিতে হয়েছে। কোনও নির্দিষ্ট সময় বেধে পড়াশোনা করতাম না। অবসর সময়ে আবৃত্তি আর গানের চর্চা করতাম। বাবা-মা, পরিবারের সব সদস্য, স্কুলের শিক্ষক সহ গৃহশিক্ষকদের থেকে যথেষ্ট সাহায্য পেয়েছি।



অন্যদিকে, মালদা শহরের কৃষ্ণপল্লির বাসিন্দা অভিষেক গুপ্ত। বাবা শিবশান্ত গুপ্ত একটি নার্সিংহোমের কর্মী। মা অনামিকা সাহা প্রাইমারি স্কুলের শিক্ষক। এবছর রাজ্যে চতুর্থ স্থান পেয়েছে অভিষেক। অভিষেক জানায়, পরীক্ষার পর আশা ছিল ৯০ শতাংশের বেশি নম্বরের। কিন্তু রাজ্যে চতুর্থ স্থান পাব এমন ভাবিনি। আমার প্রিয় বিষয় অঙ্ক। প্রতিদিনই ৫ ঘণ্টা করে পড়াশোনা করতাম। অবসর সময়ে গল্পের বই পড়া টিভিতে খেলা দেখা এসব করতাম। ভবিষ্যতে ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার ইচ্ছে রয়েছে। আমার এই সাফল্যের পেছনে বাবা-মা, স্কুলের শিক্ষক, গৃহশিক্ষকদের যথেষ্ট অবদান রয়েছে।




আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page