top of page

রান্নাঘরে পুড়ছে বউমা, বাঁচাতে গিয়ে মৃত শাশুড়িও

রান্নাঘরে আগুনে পুড়ে মৃত্যু হল গৃহবধূ ও তাঁর শাশুড়ির। ঘটনাটি ঘটেছে গাজোল থানার রানীগঞ্জ এলাকায়। মৃত শাশুড়ির নাম চম্পারাণী বিশ্বাস ও মৃত বউমা পিংকি বিশ্বাস। মৃতদেহ দুটি ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।


মৃত চম্পারাণী বিশ্বাস (৪০) ও পিংকি বিশ্বাস (২৩) গাজোলের রানিগঞ্জ এলাকার বাসিন্দা। চম্পারাণী বিশ্বাসের স্বামী প্রসাদ বিশ্বাস জানালেন, গত শনিবার সন্ধেবেলা বাড়িতে রান্না করছিলেন ছেলে সুজিত বিশ্বাসের স্ত্রী পিংকি বিশ্বাস। রান্না করতে করতে বউমার কাপড়ে আগুন লেগে যায়। বউমার আর্তনাদ শুনতে পেয়ে ছুটে আসেন শাশুড়ি চম্পারাণী বিশ্বাস। বউমাকে উদ্ধার করতে এসে তাঁর শরীরেও আগুন ধরে যায়। সন্ধেবেলা বাড়িতে আর কেউ ছিলেন না। চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা ছুটে এসে দু’জনকে উদ্ধার করে মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভরতি করে।





বাবা প্রসাদ বিশ্বাস ও ছেলে সুজিত বিশ্বাস দুজনই ভিন রাজ্যে কাজ করেন। কয়েকমাস আগে কাজ থেকে তাঁরা বাড়িতে ফিরে এসেছেন। গতকাল সন্ধ্যায় মালদা মেডিকেল কলেজে চিকিৎসা চলাকালীন বউমা পিংকি বিশ্বাসের মৃত্যু হয়। আজ সকালে মৃত্যু হয় শাশুড়ি চম্পারাণী বিশ্বাসের। এরপর মৃতদেহ দুটি মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়। মৃত্যুর পর শোকের ছায়া নেমে এসেছে রানীগঞ্জ এলাকায়।


প্রতীকী ছবি সৌজন্যে পিক্সঅ্যাবে


মালদা জেলার খবর ও বিনোদনের লেটেস্ট ভিডিয়ো আপডেট পেতে ক্লিক করুন

Comments


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page