top of page

আট বছরেও চালু হয়নি হাসপাতাল, ক্ষোভ

আট বছর আগে নির্মাণ হয়েছিল ভবন। সেই ভবনে নয় শয্যার হাসপাতাল চালু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু এখনও তা চালু হয়ে উঠতে পারেনি। এনিয়ে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে চাঁচলের নদীসিক গ্রামে বাসিন্দাদের মধ্যে। দ্রুত বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন চাঁচলের বিধায়ক।


উল্লেখ্য, চাঁচল-১ নম্বর ব্লকের মকদমপুর গ্রামপঞ্চায়েতের নদীসিক গ্রামে একটি প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্র রয়েছে। এলাকার স্বাস্থ্য ব্যবস্থার আরও উন্নতির জন্য ২০১৩ সালে একটি হাসপাতাল ভবন নির্মাণ করা হয় ওই এলাকায়। নয় শয্যার হাসপাতাল চালু হওয়ার কথা ছিল। ভবন নির্মাণের কাজ দীর্ঘ আট বছর আগে শেষ হলেও এখনও চালু হয়নি হাসপাতাল। হাসপাতাল চত্বর এখন গবাদি পশুদের বাসস্থানে পরিণত হয়েছে। আর এতেই ক্ষুব্ধ বাসিন্দারা।



স্থানীয় বাসিন্দা লায়ন আলি বলেন, আট বছরের বেশি সময় ধরে হাসপাতালটি এই অবস্থায় পড়ে রয়েছে। ওই এলাকায় এখন নোংরা আবর্জনা জমা হয়েছে। হাসপাতালের মাঠ গবাদিপশুর বিচরণক্ষেত্র হয়ে দাঁড়িয়েছে। দ্রুত হাসপাতাল চালু করা হোক।



চাঁচল-১ নম্বর ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিক আক্তার হোসেন জানান, তিনি দায়িত্ব পাওয়ার পর কোনও নির্দেশ তাঁর কাছে এসে পৌঁছোয়নি। বিষয়টি তিনি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানাবেন।




চাঁচলের বিধায়ক নীহাররঞ্জন ঘোষ বলেন, বিষয়টি তাঁর জানা। দ্রুত হাসপাতাল চালুর বিষয়ে তিনি স্বাস্থ্য দফতর ও জেলাশাসকের সঙ্গে কথা বলেছেন। দ্রুত স্বাস্থ্য পরিসেবা চালু হবে বলে আশা করছেন তিনি।


আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page