top of page

সম্পত্তি হাতাতে অন্তঃসত্ত্বার পেটে লাথি, অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা

পারিবারিক বিবাদের জেরে অন্তঃসত্ত্বার পেটে লাথি মারার অভিযোগ উঠল তৃণমূল নেতা ও পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে৷ সমস্ত ঘটনা জানিয়ে পুলিশে অভিযোগ জানানো হলেও পুলিশ কোনও ব্যবস্থা নেয়নি বলে অভিযোগ। অবশেষে পুলিশ সুপারের দ্বারস্থ হওয়ার চিন্তাভাবনা শুরু করেছে ওই পরিবার। যদিও সমস্ত অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা। ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে চাঁচলে।


আক্রান্ত অন্তঃসত্ত্বার নাম চাঁদনি পাণ্ডে উপাধ্যায়৷ তিনি মায়ের সঙ্গে চাঁচলের দক্ষিণপাড়ায় বসবাস করেন। পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, তাঁর স্বামী সিআরপিএফ জওয়ান। বর্তমানে তিনি ভিনরাজ্যে ডিউটিতে রয়েছেন। অভিযোগ, চাঁদনিদেবী ও তাঁর মাকে বাড়ি থেকে তাড়ানোর চেষ্টা করছেন তাঁরই জেঠতুতো দাদা তথা চাঁচল ১ নম্বর ব্লক তৃণমূলের সহ সভাপতি অমিতেশ পাণ্ডে৷


চাঁদনিদেবী জানান,

আমার জেঠতুতো দাদা অমিতেশ পাণ্ডে, তাঁর দাদা অভিষেক পাণ্ডে ও মা গীতা পাণ্ডে আমাদের উপর অত্যাচার চালাচ্ছে৷ এর আগেও কেরোসিন তেল ঢেলে আমার মাকে পুড়িয়ে মারার চেষ্টা করা হয়েছে৷ পুলিশ জানিয়েও কোনও সাহায্যে মেলেনি। গত ২৯ অগাস্ট রাতে আমার গর্ভস্থ সন্তান নষ্ট করতে অমিতেশ পেটে লাথি মারে৷ তিনদিন হাসপাতালে ভরতি ছিলাম। আবার এই ঘটনা পুলিশে জানাই। কিন্তু পুলিশ কোনও সহযোগিতা করেনি। এখন আমরা কোথায় যাব? আমি অমিতেশ পাণ্ডের শাস্তি চাই৷ এনিয়ে পুলিশসুপারের সঙ্গে দেখা করব৷

প্রতীকী ছবি।

অমিতেশ পাণ্ডে জানান,

এই সম্পত্তি আমার দাদুর। এনিয়ে দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক ঝামেলা চলছে। আর আমাদের বিরুদ্ধে মারধরের যে অভিযোগ তোলা হচ্ছে তা ভিত্তিহীন। উলটে ওরা আমাদের মারধর করে বদনাম করার চেষ্টা করছে।

আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page