জিএসটি ও বন্যার সাঁড়াশি চাপে, মৃৎশিল্পীরা আর্থিক ক্ষতির আশঙ্কায়

জিএসটি ও বন্যার সাঁড়াশি চাপে, মৃৎশিল্পীরা আর্থিক ক্ষতির আশঙ্কায়

ত্র্যহস্পর্শে ত্রাহি রব উঠেছে মালদা জেলার মৃৎশিল্পীদের৷দ্রব্যমূল্যবৃদ্ধি তো ছিলই, তার সঙ্গে এবার জুড়ি বেঁধেছে বন্যা আর জিএসটি৷এই তিন ঠেলায় মৃৎশিল্পীরা সারা বছরের সংস্থান এবার আর করতে পারবেন না বলেই মনে করছেন৷মাতৃমূর্তি তৈরি করতে করতে এখন তাঁরা বিপন্মুক্ত হওয়ার আশীর্বাদ চাইছেন দুর্গতিনাশিনীর কাছে৷

হাতেগোনা আর কয়েকদিন৷শারদোৎসবে মেতে উঠবে বাংলা৷বিশ্বের প্রতিটি বাঙালি যে দিনগুলির অপেক্ষায় কাটান সারা বছর৷পুজো মানে নতুন জামা-জুতো, পেট পুরে খাওয়াদাওয়া, আর সেজেগুজে পুজোমণ্ডপে জমাট আড্ডা৷তবে সব কিছুর মূলে রয়েছে মায়ের মৃণ্ময়ী মূর্তি৷যে মূর্তির কুশীলব মালদা শহরের সজল পণ্ডিত, হরিশ্চন্দ্রপুরের নারায়ণ পাল, গাজোলের মধুসূদন পালরা৷প্রকৃতি, কালোবাজারি আর গুডস্ অ্যান্ড সার্ভিস ট্যাক্সের ধাক্কায় এখন বেসামাল তাঁরা সবাই৷



মধুসূদন পাল, গাজোল


গাজোলের মধুসূদন পাল এলাকার নামজাদা মৃৎশিল্পী৷ প্রতিবারই একাধিক প্রতিমা তৈরি করেন৷এবারও গড়েছেন ১৪টি দুর্গাপ্রতিমা৷তাঁর প্রতিমা শুধু গাজোল নয়, উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুরের একাধিক মণ্ডপেও যায় প্রতিবার৷এবার যেন এক আশঙ্কা নিয়ে কাজ করে চলেছেন তিনি৷জানালেন, প্রতি বছরের মতো এবারও কয়েক মাস আগেই মূর্তির বরাত ধরেছিলেন৷তখন প্রাকৃতিক দুর্যোগের চিহ্নমাত্র ছিল না৷ কাজ শুরু করার পরেই বন্যা শুরু হল৷এমন বন্যা আগে কবে হয়েছে, তা কেউ মনে করতে পারছেন না৷বন্যায় দেখা দিল মাটি, খড়ের আকাল৷যাও বা মিলল, তা অগ্নিমূল্য৷তবুও পেশার কথা মাথায় রেখে সেই দামেই মাটি-খড় কিনতে হয়েছিল৷কিন্তু রং ও প্রতিমার সাজ কিনতে গিয়ে তাঁর মাথায় হাত পড়ে৷জিএসটি’র ধাক্কায় এসব জিনিসের দাম অনেক বেড়ে গিয়েছে৷যা পরিস্থিতি, তাতে এবার লাভের আশা দূরের কথা, প্রতিমা তৈরির খরচ উঠবে কিনা তা নিয়েই দুশ্চিন্তায় রয়েছেন তিনি৷


নারায়ণ পাল, হরিশ্চন্দ্রপুর


হরিশ্চন্দ্রপুরের নারায়ণ পালও এবার বেশ কয়েকটি মূর্তি তৈরি করেছেন৷তাঁর পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ৷ বানের জলে মাটির মূর্তিগুলি গলে গিয়েছিল৷জল কমার পর ফের সেগুলি ঠিক করতে হয়েছে৷কারখানা থেকে জল এখন নামলেও এলাকার অনেক জায়গায় এখনও বন্যার জলের তলায়৷ তার উপর প্রতিমা তৈরির উপকরণের আগুন দাম৷এদিকে বন্যায় ভেসে যাওয়া পুজো উদ্যোক্তারাও এবার প্রতিমার দাম খানিকটা কম দেবেন বলে জানিয়ে দিয়েছেন৷মূর্তি তৈরির পর তা বিক্রি না হলে পরিস্থিতি আরও জটিল হয়ে উঠবে৷তাই লোকসানের বোঝা মাথায় নিয়েও তৈরি প্রতিমা বিক্রি করতে হবে তাঁকে৷জানেন না, সারা বছর কীভাবে সংসার চালাবেন৷


সজল পণ্ডিত, ইংরেজবাজার


মালদা শহরের প্রখ্যাত মৃৎশিল্পী সজল পণ্ডিত জানালেন, বন্যা শহরের পুজোয় থাবা বসাতে না পারলেও জিএসটি’র ধাক্কায় তিনি সমস্যায়৷যখন প্রতিমার বরাত নিয়েছিলেন, তখন জিএসটি ছিল না৷পরে রং ও প্রতিমার সাজ কিনতে গিয়ে দেখেন, সেসব জিনিসে ২৮ শতাংশ জিএসটি লাগু হয়েছে৷জিএসটি’র ধাক্কায় এক বর্গফুটের একটি প্লাইবোর্ডের দাম ৩ টাকা বেড়ে গিয়েছে৷কিন্তু বায়নার থেকে প্রতিমার বেশি দাম কোনো উদ্যোক্তাই দেবে না৷তাই এবার জিএসটি’র বোঝা মাথায় নিয়েই কাজ করছেন তিনি৷


#Potter #DurgaPuja

বিজ্ঞাপন

হেডলাইন

প্রতিবেদন

রাতভর বিনিদ্র হাট

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সেই ছড়াটি মনে আছে তো? ‘হাট বসেছে শুক্রবারে, বকসিগঞ্জের পদ্মা পাড়ে৷ জিনিসপত্র জুটিয়ে এনে, গ্রামের মানুষ বেচে কেনে’...

বিজ্ঞাপন

ফলো করুন
  • Facebook
  • Instagram
  • Twitter
  • YouTube
  • Pinterest
পপুলার

মালদায় তৈরি হচ্ছে রেলের আট বেডের আইসোলেশন কোচ

করোনাভাইরাসের মোকাবিলায় এগিয়ে এল মালদা রেলওয়ে ডিভিশন৷ মালদা ডিভিশনের লোকো শেডে ১৮টি কোচকে আইসোলেশন ওয়ার্ডে পরিণত করা হয়েছে। প্রতিটি কোচে...

সব খবর ইনবক্সে!

প্রতিদিন খবরের আপডেট পেতে সাবস্ক্রাইব করুন

বিজ্ঞাপন

Aamader Malda Worldwide, the only media of your hometown and its thoughts. Here you can share and express your views and thoughts and you'll get here the essence of MALDAIYA CULT...

You can reach us via email or phone.  P +91 3512-260260  E response@aamadermalda.in

  • Facebook
  • Twitter
  • YouTube
  • Pinterest
  • Instagram
  • RSS

Copyright © 2020 Aamader Malda. All Rights Reserved.