top of page

নববধূকে তুলে আনল পরিবার, অভিমানে আত্মঘাতী স্বামী

শ্বশুরবাড়িতে গিয়ে জামাইয়ের সামনে নববধূর সিঁদুর মুছে, শাখা ভেঙে বিবাহ বিচ্ছেদের হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছিল মেয়ের বাড়ির সদস্যদের বিরুদ্ধে। অভিযোগ সেই অভিমানে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করল স্বামী। ঘটনাটি ঘটেছে ইংরেজবাজারের বিশ্বনাথ মোড় সংলগ্ন আদিবাসী পাড়া এলাকায়।



মৃত যুবকের নাম অমিত হরিজন (২০)। জানা গিয়েছে, দেড় মাস আগে মানিকচকের ধরমপুর এলাকার কিশোরী প্রিয়া ভগতের সঙ্গে বিয়ে হয় অমিতের। অভিযোগ, এই বিয়েতে রাজি ছিল না মেয়ের বাড়ির পরিবারের লোকজন। মাঝেমধ্যেই মেয়েকে তাঁর শ্বশুরবাড়ি থেকে জোর করে বাবার নিয়ে যেত পরিবারের লোকেরা। এনিয়ে দুই পরিবারের মধ্যে বিবাদ চলছিল। আজ সকালে পরিবারের লোকেরা প্রিয়ার সিঁদুর মুছে, শাখা ভেঙে বিবাহ বিচ্ছেদের হুমকি দিয়ে ফের বাড়ি নিয়ে চলে যায়। তারপরেই নিজের শোবার ঘরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন অমিত।



অমিতের মা অনিতা হরিজন জানান, আমার ছেলে সংসার করতে চেয়েছিল। কিন্তু আমরা নিচু জাতের হওয়ায় মেয়ের বাড়ির লোকজন এই বিয়েতে রাজি ছিল না। আজ সকালে মেয়ের বাড়ির লোকজন আমাদের বাড়িতে এসে অশান্তি করে বউমাকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে চলে যায়। এরপরেই ছেলে ঘরে ঢুকে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে। আমরা মেয়ের পরিবারের বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করছি।



আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page