top of page

বাজার এখনও চড়া, অথচ নিষেধাজ্ঞা ভেঙে অব্যাহত পিঁয়াজ রপ্তানি

পেঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। অথচ আইনের ফাঁক গলে বেআইনিভাবে প্রচুর পরিমাণে পেঁয়াজ রপ্তানি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। পুলিশ সহ শুল্ক দপ্তরের একাংশ এই বেআইনি রপ্তানির সঙ্গে জড়িত রয়েছে বলেও অভিযোগ। যদিও রপ্তানিকারকরা এই অভিযোগকে ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন।



মাস দুয়েক ধরেই গোটা দেশে পেঁয়াজের চাহিদা বেড়েছে৷ বাড়ছে পিঁয়াজের দাম৷ মালদা শহরে পেঁয়াজের দাম ৬০ থেকে ৭০ টাকা প্রতি কিলো৷ পেঁয়াজের ক্রমাগত মূল্য বৃদ্ধি রুখতে সম্প্রতি কেন্দ্রীয় সরকার পিঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে৷ কিন্তু পুরোনো লেটার অফ ক্রেডিটের দোহাই দিয়ে এখনও প্রতিদিন প্রতিবেশী রাজ্যে পিঁয়াজ রপ্তানি চলছে৷ অভিযোগ, ৫০ টন পেঁয়াজ রপ্তানির অনুমতি থাকলে সেই লরিতে ১০০ টন পেঁয়াজ রপ্তানি করা হচ্ছে। পুলিশ ও শুল্ক দপ্তরের একাংশ এই বেআইনি রপ্তানির সঙ্গে যুক্ত বলেও অভিযোগ উঠেছে।


যদিও ঘটনা প্রসঙ্গে মহদিপুর এক্সপোটার্স অ্যাসোসিয়েশনের সদস্য হৃদয় ঘোষ সমস্ত অভিযোগকে ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন। তিনি বলেন, কেন্দ্রীয় সরকার পেঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। তবে এখনও কয়েকজন রপ্তানিকারকের পুরোনো এলসি আছে। শুধুমাত্র তাঁরাই পেঁয়াজ রপ্তানি করছে। তবে মাত্রাতিরিক্ত পেঁয়াজ রপ্তানির যে অভিযোগ উঠেছে তা ভিত্তিহীন। শুল্ক দপ্তর সমস্ত নথিপত্র দেখেই পেঁয়াজ রপ্তানির অনুমতি দেয়।


প্রতীকী ছবি।

Comments


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page