top of page

কংগ্রেসে যোগদান করায় মারধর, ভিডিয়ো প্রকাশ্যে আনলেন প্রাক্তন বিধায়ক

পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে শাসকদলে ফাটল ধরতে শুরু করেছে। গত ২ এপ্রিল কালিয়াচকের নওদা যদুপুরে কংগ্রেস নেতা কৌস্তব বাগচির হাত ধরে বহু মানুষ তৃণমূল ছেড়ে কংগ্রেসে যোগ দেন। তৃণমূল ছেড়ে কংগ্রেসে যাওয়া কর্মীদের মারধরের অভিযোগ উঠল তৃণমূলের অঞ্চল সভাপতির বিরুদ্ধে। ইতিমধ্যে এই ঘটনায় পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেছেন দক্ষিণ মালদার সাংসদ। আজ সাংবাদিক বৈঠক ডেকে সেই ঘটনার ভিডিয়ো ফুটেজ প্রকাশ্যে আনলেন কালিয়াচকের প্রাক্তন বিধায়ক।


ভিডিয়ো প্রকাশ্যে আনছেন প্রাক্তন বিধায়ক। সংবাদচিত্র।

ইশা খান বলেন, জেলার বিভিন্ন জায়গা থেকে তৃণমূল ছেড়ে কংগ্রেসে যোগদান করছেন সাধারণ নেতা-কর্মীরা। আর এতেই তৃণমূল ভয় পেয়েছে। তৃণমূলের জেলা সভাপতি তথা বিধায়ক আমাদের কর্মীদের হুমকি দিচ্ছেন। দলীয় কর্মীদের উস্কাচ্ছেন। এনিয়ে আমরা আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার কথা চিন্তাভাবনা করছি। পাশাপাশি নওদা যদুপুর এলাকার তৃণমূলের অঞ্চল সভাপতি তৃণমূল ছেড়ে আমাদের দলে যোগদানকারী কর্মীদের মারধর করছে। আমাদের কাছে সেই ভিডিয়ো রয়েছে। এনিয়ে কংগ্রেসের পক্ষ থেকে অভিযোগ জানানো হয়েছে। কিন্তু পুলিশ কোনো পদক্ষেপ এখনও নেয়নি।



জেলা তৃণমূল সভাপতি আবদুর রহিম বক্সি বলেন,

মালদা জেলায় কোথায় কংগ্রেস কর্মী আছে? হাতেগোনা কয়েকটি মানুষ ঝান্ডা নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে। সকলে তো তৃণমূলের কর্মী-সমর্থক। তাহলে কংগ্রেস কর্মীদের মারধরের প্রশ্নই আসে না। তৃণমূল, তৃণমূলকে মারছে এটা হতে পারে। কংগ্রেস খবরের শিরোনামে থাকতে এসব মিথ্যে অভিযোগ করছে।

আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page