top of page

রাতারাতি কোটিপতি লকডাউনে কাজ হারানো বাদ্যযন্ত্রী

পেশায় বাদ্যযন্ত্রী। লকডাউনে কাজ হারিয়ে সংসার টানতে কখনও রঙের কাজ কখনও আবার অন্য কাজ করেছেন। কিন্তু কিছুতেই যেন অভাব দূর হচ্ছিল না। অবশেষে অন্যান্যদের দেখে লটারির ব্যবসা করার সিদ্ধান্ত নেন মালদা শহরের বিএসরোডের বাসিন্দা শঙ্কু ঋষি।


ছোট্ট ছেলের অলঙ্কার বন্ধ রেখে শুরু করলেন টিকিট বিক্রি। ব্যবসার শুরুতেই বারোশো টাকার ক্ষতির মুখ দেখেন তিনি। চিন্তায় ভেঙে পড়েছিলেন। এরপর সোমবার তাঁর প্রায় সমস্ত টিকিট বিক্রি হয়ে যায়। অবিকৃত টিকিট কোম্পানিতে ফিরিয়ে না দিয়ে নিজের কাছেই রেখে দেন শঙ্কুবাবু। কয়েক ঘণ্টা পর ডিস্ট্রিবিউটরের লোকজন ফোন করে জানান তাঁর বিক্রিত টিকিটে এক কোটি টাকার প্রথম পুরষ্কার খেলেছে। টিকিটের নম্বর মিলিয়ে দেখেই হতবাক হয়ে যায় শঙ্কুবাবু। তাঁর নিজের কাছে রেখে দেওয়া টিকিটেই প্রথম পুরষ্কার খেলেছে।



শঙ্কুবাবু জানান, লকডাউনে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েই এই ব্যবসায় নেমেছেন তিনি। প্রথমে ক্ষতির মুখও দেখেছেন তিনি। পরে ছেলের অলঙ্কার বন্ধক রেখে আবার ব্যবসা শুরু করেন। হয়তো ছেলের ভালোবাসার কারণে তাঁর ভাগ্য বদলে গিয়েছে। তবে কোটি টাকার পুরষ্কার পেলেও নিজের পেশা বদল করবেন না তিনি। বাড়িঘর সংস্কার করার পাশাপাশি মা-বাবার চিকিৎসা করবেন প্রথমে। বাকি টাকা প্রয়োজন মতো ছেলের পড়াশোনা সহ সংসারের খরচে ব্যবহার করবেন।




আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

Comentarios


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page