top of page

গৃহবধূকে পুড়িয়ে মারার চেষ্টার অভিযোগ শ্বশুর বাড়ির বিরুদ্ধে

আবার পণের দাবিতে এক মহিলাকে পুড়িয়ে খুন করার চেষ্টার অভিযোগ। এবারে অভিযোগ চাঁচল থানার হাটখোলা এলাকায়। আক্রান্ত যুবতি মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।



আক্রান্ত যুবতির নাম ফারহানা নাসরিন। বয়স ২২ বছর। বাড়ি চাঁচল থানার শীতলপুর সংলগ্ন মোবারকপুর গ্রামে। তাঁর ভাই ওবাইদুর রহমান জানান, বছর পাঁচেক আগে পাত্রপক্ষের দাবি অনুযায়ী পণ দিয়ে দিদির বিয়ে দিয়েছিলেন সাহিন আহমেদের সঙ্গে। সাহিন ভিনরাজ্যে শ্রমিক পাঠানোর ঠিকাদারের কাজ করে। বেশ কিছুদিন ধরেই সাহিন আর তার মা ফারহানা বাবার বাড়ি থেকে ২ লক্ষ টাকা আনার জন্য চাপ দিচ্ছিল। এনিয়ে দীর্ঘদিন ধরে দিদির সঙ্গে সাহিন ও তার মায়ের ঝামেলা চলছিল। মাঝেমধ্যে তারা দিদিকে মারধর করত। গতকাল সন্ধেয় গ্রামের এক বাসিন্দা ফোন করে তাঁদের জানান, তাঁর দিদিকে পুড়িয়ে খুন করার চেষ্টা করে সাহিনরা। সেই খবর পেয়েই তাঁরা ছুটে যান। তাঁরা ঘটনাস্থলে গিয়ে দিদিকে চাঁচল সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে যান। রাতে তাঁকে মালদা মেডিকেলে রেফার করে দেওয়া হয়। সেই অবস্থায় ফারহানা তাঁদের জানান, বাবার বাড়ি থেকে ২ লক্ষ টাকা আনতে অস্বীকার করায় গতকাল দুপুর থেকেই তাকে মারধর করছিল সাহিন ও তার মা। সন্ধে গড়িয়ে গেলেও চলছিল মারধর। একসময় তারা দিদির গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে দেয়। প্রাণ বাঁচাতে তাঁর দিদি কোনওরকমে বাড়ির বাইরে বেরিয়ে চিৎকার শুরু করে। সেই চিৎকার শুনেই পাড়ার লোকজন ছুটে আসেন। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে মা'কে নিয়ে পালিয়ে যায় সাহিন।

ফারহানার এক আত্মীয় জানান, ফের বিয়ের পরিকল্পনা করেছিল সাহিন। সেই কারণেই পরিকল্পনা অনুযায়ীই সে ফারহানাকে প্রাণে মারার চেষ্টা করেন। এদিন বিকেলেই চাঁচল থানায় তাঁরা এব্যাপারে লিখিত অভিযোগ দায়ের করতে চলেছেন।


আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

ভিডিয়োঃ কৃতাঙ্ক

Comentarios


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page