top of page

শহরের নিকাশি নিয়ে কড়া অবস্থানে জেলাশাসক

ভারী বর্ষণের ৪৮ ঘণ্টা পেরোলেও এখনও মালদা শহরের বেশ কিছু ওয়ার্ড জলের তলায়। প্রশাসনের পক্ষ থেকে বেশ কিছু এলাকায় পাম্প ব্যবহার করে জল নিকাশের চেষ্টা করা হলেও তেমন কাজ হচ্ছে না। শহরের জল নিকাশির সমস্ত বিলগুলি ভরাট করে বহুতল বাড়ি তৈরি হয়েছে। অবশেষে বাংলাদেশে প্রবাহিত নালাগুলি আজ পরিদর্শন করেন জেলাশাসক।



ঘূর্ণিঝড় ইয়শের প্রভাবে জেলাজুড়ে প্রবল বৃষ্টিপাতে পুরো শহরটায় যেন জলের তলায় চলে যায়। বেশ কিছু জায়গায় জল নামলেও এখনও শহরের বেশ কয়েকটি ওয়ার্ড জলমগ্ন। প্রশাসনের পক্ষ থেকে পাম্প ব্যবহার করে জল নিকাশের ব্যবস্থা করা হলেও তার খুব একটা প্রভাব পড়ছে না। জল নিকাশের জন্য কেটে দেওয়া হয়েছে মালদা-মানিকচক রাজ্যসড়ক। তবু শহর থেকে জল না বেরোনোয় আজ বিডিও এবং আইসিকে সঙ্গে নিয়ে সীমান্ত এলাকায় যান জেলাশাসক রাজর্ষি মিত্র। জেলাশাসকের নজরে আসে শহরের নিকাশি ব্যবস্থার নালাগুলি বিভিন্নভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে৷ কোথাও চলছে মাছ চাষ, কোথাও মাখনা চাষ৷ অবিলম্বে সেই সমস্ত এলাকা থেকে নিকাশি মুক্ত করার নির্দেশ দেন জেলাশাসক। আগামীকালই ওই এলাকায় নিকাশি ব্যবস্থার কাজ হবে।





জেলাশাসক রাজর্ষি মিত্র জানান, সীমান্তে জলপ্রবাহ বন্ধ হয়ে রয়েছে৷ তাই বর্জ্য জল বেরোতে পারছে না৷ সীমান্তের ওপারে বাংলাদেশে ভাতিয়া বিলে জমা জল চলে যেত। কিন্তু বিভিন্ন বাধায় এখন জল আর বিলে যেতে পারছে না। সমস্ত বাধা মুক্ত করার চেষ্টা চলছে।



আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

Comments


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page