top of page

এইমসের পোস্ট গ্রাজুয়েট পরীক্ষায় সারা দেশে সপ্তম মালদার মেয়ে ধৌলি

আইএনআইসিইটি এন্ট্রান্স পরীক্ষায় সপ্তম হয়েছে মালদার মেয়ে ধৌলি ঝা। ভবিষ্যতে মেডিসিন নিয়ে দিল্লির এইমসে পড়ার ইচ্ছা রয়েছে তাঁর। ধৌলির এই সাফল্য মালদা জেলার গর্ব।


মালদা শহরের মকদমপুর এলাকার বাসিন্দা ধৌলি। বাবা চঞ্চল ঝা অক্রূরমণি করোনেশন ইন্সটিটিউশনের প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক। চঞ্চলবাবুর দুই মেয়ে। দু’জনেই ডাক্তারি পড়ছে। বড়ো মেয়ে ধৌলি ডাক্তারি পরীক্ষায় পাশ করে এইমসের সর্বভারতীয় পোস্ট গ্রাজুয়েট পরীক্ষায় সফল হয়েছে। ছোটো মেয়ে দ্যুতি কলকাতা চিত্তরঞ্জন ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্রী। গত সোমবার আইএনআইসিইটি এন্ট্রান্স পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে। আর পরীক্ষায় ধৌলির সাফল্য দেখেই পরিবারে খুশির হাওয়া। সারা দেশের প্রায় ৪০ হাজার এমবিবিএস পাশ পড়ুয়া এই এন্ট্রান্স পরীক্ষায় বসেন। তারমধ্যে ৫০০ জন উচ্চশিক্ষার সুযোগ পান।



২০১২ সালে মালদা জেলায় মাধ্যমিকে মেয়েদের মধ্যে প্রথম স্থান দখল করেছিল ধৌলি। সায়েন্স নিয়ে উচ্চমাধ্যমিক পাশ করেই জয়েন্ট পরীক্ষা দিয়ে ডাক্তারি পড়া শুরু করেন ধৌলি। ২০২০ সালে কলকাতার নীলরতন সরকার মেডিক্যাল কলেজ থেকে ডাক্তারি পাশ করেন তিনি। এক বছরের ইন্টার্নশিপ শেষ করে মালদার বাড়িতে চলে আসেন ধৌলি। এরপর থেকে বাড়িতে বসেই অল ইন্ডিয়া নিট পোস্ট গ্রাজুয়েটের প্রস্তুতি নেন। এবছর ২২ জুলাই অল ইন্ডিয়া ইন্সটিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্সের পোস্ট গ্রাজুয়েট পরীক্ষায় বসেন তিনি। সেই পরীক্ষাতেই ৪০ হাজার পরীক্ষার্থীর মধ্যে সপ্তম স্থান মেলে ধৌলির। এই পরীক্ষাটি দিল্লির এআইআইএমএস, পিজিআই চণ্ডীগড়, পণ্ডিচেরির জেআইপিএমইআর এবং বেঙ্গালুরুর এনআইআইএমএইচএএএনএস পরিচালনা করে।




আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page